পূজামন্ডপ পরিদর্শনকালে সাবেক সাংসদ মঞ্জু

অপশক্তিকে পরাজিত করতে ‘দুর্গতিনাশিনী দেবী’ দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করে অপশক্তিকে পরাজিত করতে ‘দুর্গতিনাশিনী দেবী’ দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন খুলনা মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু। শারদীয়া দুর্গোৎসবে হিন্দু সম্প্রদায়কে শুভেচ্ছা জানাতে বুধবার (১৩ অক্টোবর) রাতে নগরীর শিববাড়ি, ছোট বয়রা, পৈ-পাড়া ও বটতলা পুজামন্ডপ পরিদর্শনকালে তিনি এ আহবান জানান।

মঞ্জু বলেন, মহামায়া, সনাতনী, ত্রিনয়নী, হিমালয় কন্যা থেকে শুরু করে যোগমায়া, চন্ডিকা, অম্বিকা, নারায়ণী, কাত্যায়নী কিংবা কখনো তিনি মহিষাসুর মর্দিনী দেবী দুর্গা। কতই তার নাম, কতই তার মহিমা তা বলে শেষ করা যাবে না। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কাছে সবচেয়ে জনপ্রিয় উৎসবের নাম শারদীয় দুর্গোৎসব। আজ সারাবিশ্বে তিনি দেবী দুর্গা নামেই পূজিত। মন্দিরে মন্দিরে মৃৎশিল্পীর হাতের কারসাজি আর দেবীর ত্রিনয়নের অপূর্ব সৌন্দর্য মনে এক শান্তির জন্ম দেয়। মাকে কাছে পেলে যেমন সন্তান সব দুঃখ-কষ্ট ভুলে মনে আনন্দ পায়, তেমনি দেবী দুর্গার মুখ দেখে অন্তরে ঠিক এমন সুখই অনুভব হয়। মা দুর্গার আগমনে পৃথিবী পূণ্যভূমি হয়ে ওঠে। দেবী দুর্গার আগমনেই হয়তো শরৎ পূর্ণতা পায়।

মঞ্জু আরো বলেন, দেবী দুর্গার আরাধনা করা হয় শক্তির জন্যে। অশুরের যে শক্তি তাকে বধ করবার জন্যে। দুর্গা পূজার সময়ে অপূর্ব মিলন মেলা ঘটে থাকে। বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। সব সময় সত্যের পক্ষে, অসত্যের বিরুদ্ধে, ন্যায়ের পক্ষে অন্যায়ের বিরুদ্ধে এবং সব রকমের নির্যাতন-নিপীড়নের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর দুর্গতিনাশিনী দেবী দূর্গার আরাধনা এই সময়ে হয়ে থাকে। আবহমান কাল ধরেই এই উপমহাদেশে এই ধর্মীয় উৎসবটি আনন্দঘন পরিবেশে পালিত হয়ে আসছে। যেকোনো ধর্মীয় উৎসবই সাম্প্রদায়িক বিভেদ রেখা অতিক্রম করে মানুষে মানুষে মহামিলনের সূচনা করে। শারদীয় দুর্গাপূজার উৎসব সবার মধ্যে নিয়ে আসে আনন্দের বার্তা।

পূজামন্ডপ পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন, এড. বজলার রহমান, নজরুল ইসলাম বাবু, আসাদুজ্জামান মুরাদ, ইকবাল হোসেন খোকন, মেহেদী হাসান দিপু, সাজ্জাদ আহসান পরাগ, সাদিকুর রহমান সবুজ, আকরাম হোসেন খোকন, শেখ জামিরুল ইসলাম, মোস্তফা কামাল, মহিউদ্দিন টারজান, রবিউল ইসলাম, বাচ্চু মীর, মেহেদী হাসান সোহাগ, জাহিদুল ইসলাম খোকন, মনিরুল ইসলাম, মোল্যা রাজু, অহিদুল ইসলাম, তরিকুল ইসলাম, আব্দুল হালিম, আব্দুর রহমান, সাজ্জাত হোসেন, আবু দাউদ খান, আলমগীর হোসেন, বায়েজীদ, মুস্তাফিজ, মাহবুব, আশিক, ডা. হালিম, কুদ্দুস, সাইফুল, শরিফুল ইসলাম বাদল, হারুন মোল্যা, আতিয়ার, মারুফ খান, আনিস খান, হুমায়ুন কবির, দিদার, রাজু, মিজান, মীর আলামিন, শিমুল, হাসমত, মিন্টু, মামুন, টুটুল, বাচ্চু প্রমুখ।

(ঊষার আলো-এমএনএস)