মানববন্ধনে বক্তারা

আধুনিক যুগে পুরাতন নকশায় বটিয়াঘাটায় রেল ক্রসিং মানা হবে না

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো রিপোর্ট : জনগুরুত্বপূর্ণ খুলনা টু সাতক্ষীরা মহাসড়কের ঠিকরাবাদ মোড়ে ও গল্লামারী টু বটিয়াঘাটা, নলিয়ান-পাইকগাছামুখী সড়কের দারোগার ভিটা মোড়ে চলমান রেল লাইনের ক্রসিং বন্ধ রেখে আন্ডারপাস/ওভারপাস করার দাবিতে খুলনাবাসির ব্যানারে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টায়। স্থানীয় হাজার-হাজার মানুষের উপস্থিতিতে মানববন্ধন জনসুমুর্দ্রে পরিণত হয়।

মানববন্ধনে আসা সাধারণ মানুষ ক্ষোভ করে বলেন, এমন উন্নয়নকে সাধুবাদ জানাই। কিন্তু কাদের স্বার্থ হাসিল করতে রেল কর্তৃপক্ষ প্রাচিনতম নকশায় গুরুত্বপূর্ণ এই দুটি ব্যস্ততম সড়কের উপর দিয়ে রেল ক্রসিং করছেন মান্দারতার আমলের নকশায়। দিনের পর দিন দূর্ঘটনা লেগে থাকবে এখানে। ভবিষ্যত প্রজন্ম বড় ধরনের বিপদে পড়বে। মানুষ ক্ষতির সম্মুখিন হবে। যদি মানুষের স্বার্থে রেল লাইন নির্মান করা হয়, তবে কেন সেই সাধারণ মানুষের ক্ষতিতে ফেলতে রেল কর্তৃপক্ষ উঠেপড়ে লেগেছেন।

দ্রুত নকশা পরিবর্তন করে আধুনিক মানের নকশা করে এখানে আন্ডারপাস বা ওভারপাস নির্মাণ করা হোক। তাহলে জনগন মেনে নিবে।

খুলনাবাসীর ব্যানারে অনুষ্ঠিত এ মানববন্ধনে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ আশরাফুল আলম খান বলেন, জনগণের উপকার করছে সরকার, সে জন্য আমি জনগণের প্রতিনিধি হিসেবে সরকার প্রধান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আপাকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। তিনি আমাদের ভাগ্যের উন্নয়নের জন্য কাজ করছেন। কিন্তু রেলের কিছু ভুলের কারনে জনগুরুত্বপূর্ণ এই ঠিকরাবাদ ও দারোগারভিটা মোড়ে মান্দাতারআমলের নিয়মে রেল ক্রসিং না করে আধুনিক এই যুগে আন্ডারপাস বা ওভারপাস নির্মাণ করে কাজটি দ্রুত শেষ করা হোক। বিষয়টি নিয়ে আমি উপজেলা পরিষদের মাসিক মিটিং এ রেজুলেশন করে সমস্যার সমাধান চেয়ে চিঠি দিলেও রেল কর্তৃপক্ষ আমালে নেননি। তাদের অবহেলায় আমাদের আধুনিক এই যুগে জিবনমান থমকে যাবে। ক্ষতি হবে এঅঞ্চলের মানুষের। দিনের পর দিন মানুষ বড় ধরনের বিপদে পড়বে। যার কারনে জনগণের প্রতিনিধি হিসেবে আমি তাদের ডাকে সাড়া দিয়ে মানববন্ধনে একাত্মতা প্রকাশ করেছি। দাবিটি জনগুরুত্বপূর্ণ।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন বটিয়াঘাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সদস্য দিলীপ হালদার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান চঞ্চলা মন্ডল, চেয়ারম্যান আতিকুজ্জামান আশিক,মিজানুর রহমান মিলন গোলদার, আসাবুর রহমান আসাব, শেখ মোঃ হাদি উজ জামান হাদী, মানস পাল, অনুপ গোলদার, বিএম মাসুদ রানা, শেখ ওহেদুর রহমান, অহিদুল ইসলাম, আসলাম তালুকদার, প্রকাশ রায়, কার্তিক মেম্বর, তারিকুজ্জামান সুমন, অরিন্দম গোলাদার, হুমায়ূন কবির, মিজানুর রহমান মিজান, অনুপ গোলদার, শশাংক রায়, শেখ ইব্রাহিম, সুরোজিত মন্ডল, উদয় রায়, তানভীর রহমান অপু, শিউলী বেগম, বিউটি রায়, মহিদুল ইসলাম মহিদ প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা আরো বলেন, আগামি একসপ্তাহের মধ্যে যদি রেল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নিয়ে সমাধানে হস্তক্ষেপ না করেন তবে জনগণের স্বার্থে লাগাতর কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে।

(ঊষার আলো-এমএনএস)