মুজিবর্ষ’র উপহার

কচুয়ায় ভুমিহীন ১৭টি পরিবারের জমিসহ বসতঘর নির্মাণ শেষ

সর্বশেষ আপডেটঃ

আরিফুর রহমান, বাগেরহাট : মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষ্যে অসহায় ভুমিহীনদের জন্য সরকারের দেয়া ২য় ধাপে বাগেরহাটের কচুয়া উপজেলার ১৭ টি পরিবারের জন্য জমিসহ পাকাবসতঘর র্নিমান সম্পন্ন করা হয়েছে। আগামি ২০ জুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ ঘর হস্তান্তর প্রক্রিয়ার উদ্বোধন করবেন।

বাগেরহাটের নবাগত জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ আজিজুর রহমান বৃহস্পতিবার নির্মানকরা ওই ঘরগুলি পরিদর্শন করে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। তিনি বলেন, মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে গরীব,অসহায়, ভুমিহীন ও গৃহহীনদের প্রধানমন্ত্রী পর্যায়ক্রমে জমিসহ পাকা ঘর উপহার দিচ্ছেন। দীর্ঘদিন ধরে এসব পরিবার জমি ও ঘর বাড়ির অভাবে পরিবার পরিজন নিয়ে চরম মানবেতর জীবন যাপন করছিল। এখন তারা নতুন ঘর ও জমি পেয়ে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে সারা দেশে ভুমিহীন দরিদ্র আশ্রয়হীন পরিবারের জন্য ১ লক্ষ নিরাপদ আবাসন প্রকল্প নির্মানের পরিকল্পনা নিয়েছেন। এরই ধারা বাহিকতায় ২য় ধাপে বাগেরহাটের কচুয়া উপজেলার ২টি ইউনিয়নে ১৭ টি পাকা ঘর নির্মনের কাজ শেষ হয়েছে। উপজেলার বাধাল ইউনিয়নে রঘুদত্তকাঠী গ্রামে ও রাড়িপাড়া ইউনিয়নের শিবপুর গ্রামে এই ১৭টি পাকাঘর নির্মান করা হয়েছে। কচুয়া উপজেলায় ১০০ টি ভুমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে এ প্রকল্পের আওতায় নেয়া হবে। এ সময় কচুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জীনাত মহল জানান দেশের অসহায় ভুমিহীন ও বাস্তহারা পরিবারের মাথা গোজার ঠায় হিসেবে টেকসই বাড়িঘর নির্মান করার উদ্যোগের অংশ হিসাবে ২য় ধাপে ১৭ টি পরিবার নতুন পাকা ঘর করে দেয়া হয়েছে। প্রতিটা পাকা ঘর করতে ব্যায় ধরা হয়েছে ১ লাখ ৯০ হাজার টাকা। ১৭টি বাড়ির নির্মান কাজ শেষ। আগামী ২০ জুন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে এসব ঘরের উদ্বোধন করবেন। জেলা প্রশাসকের ব্রিফিংকালে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাজস্ব শাহীনুজ্জামান, উপজেলা প্রকৌশলী আনিসুজ্জামান ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা অঞ্জন কুমার কুন্ডু প্রমুখ। আগামী ২০জুন প্রধানমন্ত্রী জসনেত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে সারা দেশে একযোগে এসব ঘরের উদ্ভোধন করবেন।