রাত থেকে ইলিশ আহরণে ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : কাল ৪ অক্টোবর থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত ইলিশ ধরা নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সরকার। প্রজনন মৌসুমের কারনে ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ করা হয়। তাই ফিশিংবোট, ট্রলার, নৌকা ও মাছ ধরার সরঞ্জাম নিয়ে সাগর ও নদী থেকে ঘরের উদ্দেশে রওনা দিয়েছে জেলেরা। এই সময়ে জেলেদের জন্য ১১ হাজার ১১৮.৮৮ মেট্রিক টন ভিজিএফ চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

উপকূলীয় উপজেলাগুলোতে প্রশাসন ও মৎস্য বিভিাগের সমন্বয়ে ট্রাস্কফোর্স কমিটি গঠন করা হয়েছে। এক সপ্তাহ আগে থেকেই মৎস্য সংশ্লিষ্টদের সাথে মতবিনিময় ও জেলে পল্লীগুলোতে প্রচার-প্রচারণা করা হয়।

আগামীকাল থেকে শুরু হওয়া ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা সময়ে  ইলিশ আহরণ, বিপণন, পরিবহণ, ক্রয়-বিক্রয়, বিনিময় ও মজুদ সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ বিধিনিষেধ অমান্যকারীর বিরুদ্ধে ১৯৫০ সালের মৎস্য সুরক্ষা ও সংরক্ষণ আইন অনুযায়ী ৫ হাজার টাকা জরিমানা, সর্বনিম্ন ১ বছর ও সর্বোচ্চ ২ বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করার বিধান রয়েছে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় জানিয়েছেন, ৩৭ জেলার ১৫১টি উপজেলায় মা ইলিশ আহরণে বিরত থাকা ৫ লাখ ৫৫ হাজার ৯৪৪টি জেলে পরিবারের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। ২০ কেজি করে চাল পাবে প্রত্যক জেলে পরিবার।

গতকাল সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকদের অনুকূলে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের এসংক্রান্ত মঞ্জুরি জ্ঞাপন করা হয়।। ভিজিএফ চাল পরিবহন ব্যয়ও সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকদের অনুকূলে মঞ্জুরি জ্ঞাপন করা হয়। আগামী ২৫ অক্টোবরের মধ্যে উত্তোলন ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের মধ্যে বিতরণ সম্পন্ন করার জন্য জেলা প্রশাসকদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

 

(ঊষার আলো-আরএম)