কেশবপুরের পাঁজিয়া বাজারের সড়কটির বেহাল দশা, সংস্কার করলেন যুবকেরা

সর্বশেষ আপডেটঃ

পরেশ দেবনাথ, কেশবপুর : কেশবপুরের পাঁজিয়া ইউনিয়নের পাঁজিয়া বাজার সংলগ্ন বাংলালিংক টাওয়ারের সড়কটির বেহাল দশা, সংস্কার করে দিলেন যুবকেরা বৃষ্টি হলেই ১০ গ্রামের হাজারও মানুষের কাঁদা ডিঙিয়ে পাঁকা সড়কে উঠতে হয়। দীর্ঘদিন ধরে এ অবস্থার সৃষ্টি হলেও সংস্কারে এগিয়ে আসেনি কেউ। গত ৩ দিনের টানা বৃষ্টিতে এবার এ সড়ক দিয়ে চলাচলকারী মানুষকে হাতে জুতা নিয়ে পাঁকা সড়কে উঠতে হয়েছে। এমন দৃশ্য দেখা গেছে কেশবপুরের পাঁজিয়া বাজার সংলগ্ন বাংলালিংক টাওয়ারের সড়কটিতে। তবে বুধবার স্থানীয় কিশোর দেবনাথ নামে এক যুবক কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে সড়কটি সংস্কার করে চলাচল উপযোগী করেছে।

জানা গেছে, বাংলালিংক টাওয়ারের এ সড়কটি দিয়ে পাঁজিয়া, হদ, মাগুরখালি, মাস্টারপাড়া, নাথ পাড়াসহ ১০ গ্রামের মানুষ যাতায়াত করে থাকেন। সড়কটি ইটের হলেও প্রায় আধা কিলোমিটার রাস্তার বিভিন্ন স্থানে খানা খন্দে পরিণত হয়েছে। এছাড়া কোথাও কোথাও ইটের চিহ্নও এখন নেই। বৃষ্টি হলেই যাতায়াতে ব্যাপক ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

এ সড়ক দিয়ে চলাচলকারী সিরাজুল ইসলাম বলেন, বৃষ্টি হলেই সড়কের এই স্থানে হাটু কাঁদা হয়। কাঁদার মধ্যি দিয়ে লোকজন হাতে জুতা নিয়ে যাতায়াত করার সময় হুবড়ি (হুমড়ি) খায়ে পড়ে। এমনকি গাড়ি যাওয়ার সময় কাঁদার মধ্যি আটকে যায়। এলাকার কিশোর দেবনাথ, অলোক দে, আলমগীর হোসেন, জাহাঙ্গীর হোসেনসহ কয়েকজন যুবক বালি ও ইটের কুচি দিয়ে রাস্তা সংস্কার করে দিচ্ছে। এতে যাতায়াতে ভোগান্তি কিছুটা হলেও কমবে।

এ বিষয়ে কিশোর দেবনাথ বলেন, গত ৩ দিনের টানা বৃষ্টিতে এ সড়ক দিয়ে ১০ গ্রামের মানুষের কাঁদার ভেতর দিয়ে যাতায়াতে ভোগান্তি চোখে পড়ে। এলাকার কয়েকজন যুবককে সঙ্গে নিয়ে সকাল থেকে ভ্যানে করে বালি ও ইটের কুচি দিয়ে রাস্তা সংস্কার করছি। প্রায় ১৬০ ফুট সড়কের কাঁদা সরিয়ে বালি ও ইটের কুচি দিয়ে মানুষের যাতায়াতের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া সড়কের আরও বিভিন্ন স্থানে এভাবে সংস্কার করা হবে। আপনারা আশির্বাদ করবেন যেন আমি মানুষের সেবা করে যেতে পারি।

(ঊষার আলো-এমএনএস)