ক্রিসেন্ট জুট মিলে বকেয়া পরিশোধে লাখে দশ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো রিপোর্ট : বিজেএমসি নিয়ন্ত্রিত ক্রিসেন্ট জুট মিলের বদলী শ্রমিকদের বকেয়া মজুরী পেতে হলে একটি মহলকে লাখে দশ হাজার টাকা করে দিতে হচ্ছে। এছাড়া নানা অজুহাতে চক্রটি শ্রমিকদের ভোগান্তিতে ফেলছে। এমনই অভিযোগ করেন ক্রিসেন্ট জুট মিল বদলী শ্রমিক সংগঠনের আহবায়ক জাকির হোসেন।

তিনিসহ অন্যান্য শ্রমিকরা বলেন, মিলে বর্তমানে ছয় সহস্রাধীক বদলী শ্রমিক রয়েছে। বদলী শ্রমিকদের বকেয়া মজুরীর টাকা সরকার দিয়ে দিলেও নানা অজুহাতে একটি চক্র শ্রমিকদের ভোগান্তিতে ফেলছে। তারা ছোটখাটো ভূল সংশোধনের নামে লাখে ১০ হাজার থেকে ১৫ হাজার টাকা পর্যন্ত হাতিয়ে নিচ্ছে। এ চক্রের মধ্যে মিলের বর্তমান সিবিএ ও নন সিবিএ নেতাদের একটি অংশ রয়েছে। তারা বেশীরভাগ সময়ে মিলের অফিস এলাকায় অবস্থান করে। আর বদলী শ্রমিকদের টাকা সহজে পাইয়ে দেয়ার কথা বলে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।

বদলী শ্রমিক সংগঠনের আহবায়ক ইলিয়াস হোসেন বলেন, শ্রমিকদের কাছ থেকে যাতে কেউ কোন ধরণের অবৈধ সুবিধা নিতে না পারে সে জন্য আগেভাগেই ঘোষণা দেয়া হয়েছে। অথচ ক্রিসেন্ট মিলে একটি চক্র শ্রমিকদের বিপদে ফেলে টাকা আদায় করার অভিযোগ সত্যই বড় দুঃখজনক বলে তিনি মন্তব্য করেন। এসব বিষয় কঠোর হস্তে দমন করার দাবি জানান এই নেতা।

মিলের প্রকল্প প্রধান কামরুল ইসলাম বলেন, শ্রমিকরা এসব অনিয়মকারীদের নামের তালিকা দিলে তিনি কঠোর ব্যবস্থা নিবেন। তবে করোনা কারণে তার অফিসে সবার প্রবেশ সচারচর ছিল না। এখন অনেকটা স্বাভাবিক হয়েছে। বদলী শ্রমিকরা তাদের বকেয়া পেতে কোন সমস্যা হলে সরাসরি তার কাছে অভিযোগ করার জন্য বলেন। তিনি বলেন, তার মিলে ২৯৮৬ জন বদলী শ্রমিকের নামে ডিও এসেছে। এর মধ্যে অনেকের নাম ভুল, মামলাসহ নানা সমস্যা রয়েছে। এসব সমস্যা সমাধান না হওয়া পর্যন্ত তাদের টাকা দেয়া যাচ্ছে না বলে তিনি জানান। তবে বেশীরভাগ শ্রমিকের টাকা পরিশোধ করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

(ঊষার আলো-এমএনএস)