কয়রার কার্তিক হত্যা মামলার প্রধান আসামি আটক

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো রিপোর্ট : খুলনা জেলার কয়রা উপজেলার দিনমজুর কার্তিক চন্দ্র সরকার হত্যা মামলার মূল আসামিকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, পরকীয়া প্রেমের কারণে কয়রার আমাদী ইউনিয়নের হরিকাটি গ্রামের মৃত রঘুনাথ সরকারের একমাত্র পুত্র কার্তিক চন্দ্র সরকার (৪২) কে গত ২৭ সেপ্টেম্বর পানিতে চুপিয়ে হত্যা করে আমাদী ইউনিয়নের নাকসা মসজিদকুড় সীমান্তের ছোট চাঁদখালী খালে ভাসমান কচুরীপানার নিচে লুকিয়ে রাখে। স্থানীয় লোকজন বিষয়টি জানতে পেরে কয়রা থানা পুলিশকে অবহিত করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে লাশটি উদ্ধার করে।

সুরতহাল রিপোর্ট শেষে ময়নাতদন্তের জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। এ ব্যাপারে নিহতের মামা পাইকগাছা উপজেলার মৌখালী গ্রামের মনোরঞ্জন সানা বাদী হয়ে কয়রা থানায় ২৭/৯/২০২১ইং তারিখে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন যার নং ২২ । ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহ নিহত কার্তিক সরকারের স্ত্রী অর্চনা সরকার (৩৫) ও বিনোদ সরদারের পুত্র সুরঞ্জন ওরফে বন্টে সরদার (৪০) কে আটক করে পুলিশ। তাদের স্বীকার উক্তি মতে হত্যা মামলার সাথে জড়িত মুল আসামী রনজিত মন্ডলকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে আটক করতে সক্ষম হয় পুলিশ।

এ ব্যাপারে কয়রা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ রবিউল হোসেন বলেন, জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান মহোদয়ের নির্দেশনায় দ্রুত সময়ের মধ্যে মামলার প্রধান আসামী কে আটক করতে সক্ষম হয়েছি। পরকীয়ার কারণে নিহত কার্তিক সরদারকে হত্যা করা হয়েছে বলে মামলার প্রধান আসামী রনজিত মন্ডল স্বীকার করেছেন।

উল্লেখ্য, খুলনার সহকারী পুলিশ সুপার (ডি-সার্কেল) মোঃ সাইফুল ইসলাম মরদেহ উদ্ধারের সময় ঘনটাস্থল পরিদর্শন করেন। মামলার তদন্ত অব্যাহত রয়েছে ও বলে তিনি জানান।

(ঊষার আলো-এমএনএস)