শারীরিক শিক্ষা চর্চা বিভাগের কার্যক্রম জোরদারে উপাচার্যের সাথে বৈঠক

খুবির খেলার মাঠের উন্নয়নের সাথে নির্মিত হবে গ্যালারি, চালু হচ্ছে ফিটনেস সেন্টার

সর্বশেষ আপডেটঃ

উষার আলো ডেস্ক : খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষা চর্চা বিভাগের কার্যক্রম জোরদারে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়ে সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহিদ তাজউদ্দীন আহমদ ভবনের সম্মেলন কক্ষে উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন এর সভাপতিত্বে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় শারীরিক শিক্ষা চর্চা বিভাগের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. আহসান হাবিব সংশ্লিষ্ট বিভাগের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য এবং কর্মপরিকল্পনা পাওয়ার পয়েন্টের মাধ্যমে উপস্থাপন করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ে আনন্দের সাথে লেখাপড়ার পাশাপাশি সেখানে শিক্ষার্থীদের অধিকতরভাবে খেলাধুলা ও শারীরিক অনুশীলনের মাধ্যমে মানসিক বিকাশ, নেতৃত্বদান, উদ্যোমী ও সৃজনশীল হিসেবে গড়ে তোলার বিভিন্ন দিক তুলে ধরা হয়। প্রয়োজনীয় অবকাঠামো এবং মাঠকেন্দ্রিক উন্নয়ন ছাড়াও সভায় সংশ্লিষ্ট বিভাগের কার্যক্রম জোরদারে বেশ কিছু প্রস্তাবনা উপস্থাপন করা হয়।

উপাচার্য তাঁর বক্তব্যে শারীরিক শিক্ষা চর্চা বিভাগের কার্যক্রম জোরদারে গৃহীত পরিকল্পনার প্রশংসা করে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শারীরিক ও মানসিক বিকাশে খেলাধুলা ও শরীরচর্চা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। কেবল ক্লাসের শিক্ষায় জোর দিতে যেয়ে শিক্ষার্থীদের শারীরিক ও মানসিক ক্ষেত্রে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। তারা ক্লাসের বাইরের সময়টা খেলাধুলা বা শরীরচর্চা না করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যয় করছে। এটা তাদের মানসিক, মানবিক, শারীরিক ও সৃজনশীলতার বিকাশে অন্তরায় হয়ে দাঁড়াচ্ছে। শিক্ষার্থীদের মানসিক প্রফুল্লতার জন্য ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক চর্চা জোরদার করা প্রয়োজন।

বিশ্ববিদ্যালয় খুললে আমরা এ বিষয়গুলোতে মনোযোগ দিতে চাই। তিনি একাডেমিক ক্যালেন্ডারের সাথে সমন্বয় করে বিভিন্ন ইভেন্টের আয়োজনের উপর গুরুত্বারোপ করেন। উপাচার্য খেলার মাঠের উন্নয়নের সাথে গ্যালারি নির্মাণ, ফিটনেস সেন্টারের কার্যক্রম দ্রুত চালু করা, সুইমিংপুল স্থাপন, বাস্কেটবল কোট নির্মাণ, বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা, ইনডোরস্ গেমস আয়োজনসহ বেশকিছু বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণের বিষয়ে নির্দেশনা দেন। তিনি শারীরিক শিক্ষা ও চর্চা বিভাগের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ কোর্স চালু করার বিষয়েও পরামর্শ দেন। এছাড়া তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে পৃথকভাবে শারীরিক শিক্ষা ও চর্চা বিভাগের মিশন-ভিশনসহ কার্যক্রম তুলে ধরার আহ্বান জানান।

সভায় জানানো হয়, আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের দীর্ঘ প্রত্যাশিত অত্যাধুনিক জিমনেশিয়াম নির্মাণের কাজ শুরু হবে। সভায় শারীরিক শিক্ষা চর্চা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক সংশ্লিষ্ট বিভাগের কার্যক্রম জোরদারে এ ধরণের একটি সভার আয়োজন, দিকনির্দেশনা ও পরামর্শ প্রদানের জন্য উপাচার্যকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

সভায় ছাত্র বিষয়ক পরিচালক প্রফেসর মোঃ শরীফ হাসান লিমন, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন বিভাগের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মুঃ মাহবুবুস সোবহান, প্রধান প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ আব্দুর রাজ্জাক সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বক্তব্য রাখেন। এসময় জনসংযোগ ও প্রকাশনা বিভাগের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) এস এম আতিয়ার রহমান, শারীরিক শিক্ষা ও চর্চা বিভাগ, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন, প্রকৌশল বিভাগের কর্মকর্তাবৃন্দ এবং উপাচার্যের সচিবসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

(ঊষার আলো-এমএনএস)