খুলনায় করোনার সর্বোচ্চ শনাক্ত, মৃত্যু ১০

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো রিপোর্ট : খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় এ যাবৎকালের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৫৫৭ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। আর গত ২৪ ঘন্টায় এ বিভাগে মারা গেছেন ১০ জন। গত ২৪ ঘন্টায় বিভাগে সুস্থ হয়েছেন ১৫৭ জন। বুধবার (৯ জুন) বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক রাশেদা সুলতানা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
রাশেদা সুলতানা জানান, যশোর ও সাতক্ষীরায় গত ২৪ ঘন্টায় শতাধিক ব্যক্তির শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। খুলনা জেলায় ৮০ জন, বাগেরহাটে ১৯ জন, যশোরে ১৪৩ জন, সাতক্ষীরায় ১০৮ জন, নড়াইলে ২৯ জন, মেহেরপুরে ১৩ জন, চুয়াডাঙ্গায় ১৯ জন, ঝিনাইদহে ১৭ জন, মাগুরায় ১৩ জন ও কুষ্টিয়ায় ৬৭ জন করোনা শনাক্ত হন। গত ২৪ ঘন্টায় করোনা রোগী মারা গেছেন বিভাগের বাগেরহাটে ৪জন, খুলনায় ৩জন, যশোরে ১জন ও কুষ্টিয়ায় ২জন।
বিভাগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে খুলনায় ১৯১ জন, কুষ্টিয়ায় ১২২ জন, যশোরে ৮৪ জন, চুয়াডাঙ্গায় ৬৪ জন, ঝিনাইদহে ৫৭ জন, সাতক্ষীরায় ৪৮ জন, বাগেরহাটে ৫১ জন, নড়াইলে ২৭ জন এবং মাগুরা ও মেহেরপুরে ২৩ জন করে রয়েছেন।
খুলনার সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মদ বলেন, ‘৯ জুন সকাল পর্যন্ত খুলনায় ৩৩১ জনের নমুনা পরীক্ষার পর ৮০ জনের করোনা পজিটিভ পাওয়া গেছে। ৯ জুন শনাক্তের হার ২৪ শতাংশ। আর ৩ জন মারা গেছেন।’
খুলনা মেডিক্যাল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মো. মেহেদী নেওয়াজ বলেন, ‘করোনা এখন আর স্থিতিশীল নেই, বরং উচ্চমাত্রায় সংক্রমণশীল।’
খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আরএমও ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার বলেন, ‘১০০ শয্যার করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে বুধবার (৯ জুন) সকাল পর্যন্ত ১৩০ জন রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন ভর্তি হয়েছেন ৫৭ জন। আর ২৪ ঘণ্টায় ছাড়পত্র পেয়েছেন ৫১ জন। মারা গেছেন ৯ জন।’

(ঊষার আলো-এমএনএস)