সরকারের প্রতি খুলনা বিএনপি

খুলনায় করোনায় আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসায় অবিলম্বে সেনাবাহিনী নিযুক্ত করুন

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো রিপোর্ট : করোনার ভয়বহতা রোধ ও জনগণকে নিরাপদ রাখতে খুলনা বিভাগে প্রায় অর্ধলক্ষ করোনা রোগীর চিকিৎসায় অবিলম্বে সেনাবাহিনীর মেডিকেল কোর নিযুক্ত করে অস্থায়ী ক্যাম্প গঠনের মাধ্যমে জনগণকে রক্ষায় জরুরী পদক্ষেপ গ্রহণের আহবান জানিয়েছে খুলনা মহানগর বিএনপি। রবিবার (৪ জুলাই) প্রদত্ত বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে খুলনা অঞ্চলে জরুরী অবস্থা ঘোষণা করে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধ ও চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে রাষ্ট্রের সর্বশক্তি প্রয়োগের আহবান জানিয়ে বলেন, উদ্বেগ উৎকণ্ঠা ও নিরাপদহীন খুলনার জনগণকে রক্ষায় শুধুমাত্র লকডাউন নয়, প্রয়োজনে আক্রান্তদের পর্যাপ্ত চিকিৎসার ব্যবস্থা করা। খুলনা মহানগর ও জেলায় করোনায় আক্রান্ত ১৬৩৮৭ জনের মধ্যে সুস্থ হয়েছে ১১৩৫২ জন। বাকী প্রায় ৫০০০ রোগীর মধ্যে সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে মিলে ৪০০ রোগী চিকিৎসা পেলেও প্রায় সাড়ে ৪ হাজার রোগী চিকিৎসা বঞ্চিত। নেতৃবৃন্দ করোনা ভাইরাস রোধে সরকারের অবহেলা অতিকথন সময় মত পর্যাপ্ত ব্যবস্থা না নেয়ায় দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল আজ মৃত্যুপুরিতে পরিণত হয়েছে। বর্তমান ভয়াবহ পরিস্থিতি সামাল দেয়া, জনশক্তিহীন দুর্বল ব্যবস্থাপনা ও সমর্থহীন স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষে সম্ভব নয়। প্রয়োজন এই মুহুর্ত থেকে সকল শক্তি ও সামর্থ নিয়ে জনগণের পাশে দাঁড়ানোর। এছাড়া প্রতিদিন হাজার হাজার লোকের কোভিড পরীক্ষা, স্টেডিয়াম, বিদ্যালয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে অস্থায়ী ক্যাম্প স্থাপন করে ব্যাপক আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসা নিশ্চিত করা। বিদেশ থেকে আনা সকল ভ্যাকসিন উপদ্রুত এলাকায় প্রয়োগের ব্যবস্থা করা, লকডাউন দীর্ঘায়ীত করা, একই সাথে কর্মহীন মানুষের জন্য পর্যাপ্ত খাদ্যসামগ্রী বিতরণের ব্যবস্থা করা এবং এ সকল কাজ সেনাবাহিনীর মেডিকেল ও সাপ্লাই কোরের মাধ্যমে সম্পন্ন করা। নেতৃবৃন্দ খুলনাবাসীকে বর্তমান দুর্যোগকালীন সময়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিরন্ন মানুষের পাশে থেকে জাতীয় দুর্যোগ মোকাবেলায় ধৈর্যধারণ করে ঐক্যবদ্ধ থেকে কাজ করাসহ সরকারকে জননিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ গ্রহনের আহবান জানিয়েছেন। বিবৃতিদাতা নেতৃবৃন্দরা হলেন খুলনা মহানগর বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান মনি, সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজা, মীর কায়সেদ আলী, শেখ মোশাররফ হোসেন, জাফরউল্লাহ খান সাচ্চু, জলিল খান কালাম, সিরাজুল ইসলাম, এড. ফজলে হালিম লিটন, এড. বজলুর রহমান, এড. এস আর ফারুক, স ম আব্দুর রহমান, শেখ ইকবাল হোসেন, শেখ জাহিদুল ইসলাম, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, অধ্যাপক আরিফুজ্জামান অপু, সিরাজুল হক নান্নু, মো. মাহবুব কায়সার, নজরুল ইসলাম বাবু, আসাদুজ্জামান মুরাদ, এস এম আরিফুর রহমান মিঠু ও ইকবাল হোসেন খোকন প্রমুখ।
(ঊষার আলো-এমএনএস)