নৌকা ২১, স্বতন্ত্র বিদ্রোহী ৮ ও স্বতন্ত্র (অন্যান্য) ৪ জয়ী, স্থগিত ১

খুলনায় বেসরকারিভাবে নির্বাচিত চেয়ারম্যানরা

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো প্রতিবেদক : খুলনা জেলার ৩৪টি ইউপি’র নির্বাচনের বেসরকারি ফলাফল পাওয়া গেছে। যার মধ্যে ১জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আগেই নির্বাচিত হয়েছেন। আর বাকি ৩৩টির মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত ২১জন নৌকা প্রতীকের প্রাথী জয়লাভ করেছেন। বাকি ১৩টির মধ্যে ৮টিতে জয়লাভ করেছে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী এবং ৪টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী।

খুলনার ৫ উপজেলার ৩৩টি ইউনিয়নের বেসরকারি ফলাফলে জানা যায়, দিঘলিয়া উপজেলায় নৌকা প্রতীক নিয়ে ১ জন এবং বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে ৫ জন জয়লাভ করেছেন।

পাইকগাছায় নৌকা প্রতীকে জয়লাভ করেছেন ৭জন চেয়ারম্যান এবং বিদ্রোহী প্রার্থী জয়লাভ করেছে মাত্র ১টি ইউনিয়নে।

কয়রা উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের মধ্যে নৌকার প্রার্থী ৫টিতে এবং বিদ্রোহী প্রার্থী ১টিতে জয়লাভ করেছে। এছাড়া ১টি কেন্দ্রের ফলাফ স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন।

বটিয়াঘাটা উপজেলার ৩টি ইউনিয়নের মধ্যে ১টিতে নৌকার প্রার্থী এবং ২টিতে বিদ্রোহী প্রার্থী জয়লাভ করেছেন।

এদিকে দাকোপ উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের মধ্যে ৭টিতে নৌকার প্রার্থী এবং ২টিতে বিদ্রোহী প্রার্থী বেসরকারিভাবে জয়লাভ করেছেন।

দিঘলিয়া ইউনিয়নের সদর ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী হায়দার আলী মোড়ল, সেনহাটি ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী জিয়া গাজী, বারাকপুর ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী গাজী জাকির, গাজীরহাট ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী মফিজুল ইসলাম ঠাণ্ডু, যোগীপোল ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী সাজেদুর রহমান লিংকন ও আড়ংঘাটা ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী এসএম ফরিদ আক্তার বেসরকারীভাবে বিজয়ী হয়েছেন।

অপরদিকে পাইকগাছা উপজেলার কপিলমুনিতে নৌকার প্রার্থী কওসার আলী জোয়ার্দ্দার, লতায় নৌকার প্রার্থী কাজল কান্তি বিশ্বাস, লস্করে নৌকার প্রার্থী আরিফুজ্জান তুহিন কাগজী, গদাইপুরে নৌকার প্রার্থী জিয়াদুল ইসলাম জিয়া, সোলাদানায় নৌকার প্রার্থী আবদুল মান্নান গাজী, দেলুটিতে নৌকার প্রার্থী রিপন কান্তি মন্ডল, গড়ইখালিতে প্রার্থী স্বতন্ত্র আবূুস সালাম, রাড়ুলীতে নৌকার প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

কয়রা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ হযরত আলী জানান, ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নেয়ায় কয়রা সদর ইউনিয়নের ৪নং কয়রা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের নির্বাচন বন্ধ করে দেয়া হয়। সে কারণে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদের ফলাফল স্থগিত রাখা হয়েছে। উত্তর বেদকাশিতে নৌকার প্রার্থী সরদার নুরুল ইসলাম, দক্ষিণ বেদকাশিতে বিদ্রোহী প্রার্থী আছের আলী মোাড়ল, মহেশ্বরীপুর নৌকা শাহনেওয়াজ, মহারাজপুরে নৌকার প্রার্থী আবদুল্লাহ আল মাহমুদ, আমাদিতে নৌকার প্রার্থী জিয়াউর রহমান জিয়া, বাগালীতে নৌকার প্রার্থী আবদুস সামাদ গাজী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

বটিয়াঘাটা উপজেলার গঙ্গারামপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী আসলাম হালদার মার্কা আনারস (বিএনপি), বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী বালিয়াডাঙ্গায় আসাবুর রহমান আসাদ এবং আমিরপুরে নৌকার প্রার্থী মিলন গোলদার বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

দাকোপ উপজেলার বাজুয়া ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী মানষ কুমার রায়, তিলডাঙ্গা ইউনিয়নে বিদ্রোহী গাজী জালাল উদ্দিন, নৌকার প্রার্থী কামারখোলা পঞ্চানন মণ্ডল, সদর ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী বিনয় কৃষ্ণ রায়, বানিয়াশান্তা ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী সুদেব রায়, লাউডোব ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী শেখ যুবরাজ, পানখালী ইউনিয়নে বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী সাব্বির আহমেদ, সুতারখালী ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী মাসুম আলী ফকির ও কৈলাশগঞ্জ ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী মিহির মণ্ডল বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে।

(ঊষার আলো-এমএনএস)