ঘণ্টায় ৮৮ কিলোমিটার বেগে ভারতের দিকে অগ্রসর হচ্ছ গুলাব

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : বঙ্গোপসাগরে গভীর নিম্নচাপের ফলে সৃষ্টি হওয়া ঘূর্ণিঝড় ‘গুলাব’ ঘণ্টায় ৮৮ কিলোমিটার বেগে ভারতের উপকূলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যার দিকে এটি আছড়ে পড়তে পারে দেশটির উপকূলে। এর প্রভাবে বাংলাদেশের সমুদ্রবন্দর ও নদীবন্দরে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। এ জন্য বাংলাদেশের সমুদ্রবন্দরগুলোকে ২ নম্বর দূরবর্তী সতর্কতা সংকেত এবং নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সর্তকতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। একই কারণে সারা দেশে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান বলেন, ঘূর্ণিঝড় গুলাব ভারতের উপকূলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। এর প্রভাবে বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। পাশাপাশি দেশেটির বিভিন্ন এলাকায় বিশেষ করে দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

ঘূর্ণিঝড় গুলাব বঙ্গোপাসাগরের পশ্চিম ও উত্তর-পশ্চিম-এ অবস্থান করছে। এটি আরও ঘনীভূত হতে পারে। গুলাব চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৫৭০ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে, সকালে তা আরও সরে গিয়ে ৬৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছে। একইভাবে কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ছিল ৫২০ কিলোমিটার, এখন ৬৩০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিম দূরত্বে অবস্থান করছে। একইভাবে মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ছিল ৪৭০ কিলোমিটার, এখন আছে ৫২৫ দক্ষিণে, পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৪৫০ কিলোমিটার থেকে এগিয়ে এখন ৫৩০ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছে। এটি আরও পশ্চিম ও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।

গভীর নিম্নচাপের কেন্দ্রস্থলের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা গতিবেগ ৬২ কিলোমিটার, যা দমকা বা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। গভীর নিম্নচাপের কেন্দ্রের কাছে সাগর খুবই উত্তাল।

এজন্য মোংলা, পায়রা, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরগুলোকে ২নং সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। একই সাথে উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি গভীর সাগরে বিচরণ করতে নিষেধ করা হয়েছে।

পূর্ব-মধ্য ও উত্তর বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হওয়া গভীর নিম্নচাপ ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে। এটি এখন উত্তর-পশ্চিম ও পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। এটি আরও ঘনীভূত হয় পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে। এর প্রভাবে খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অধিকাংশ জায়গায়, ঢাকা ও রাজশাহী বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ ও সিলেটের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, কুষ্টিয়া, যশোর, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার অঞ্চলগুলোর ওপর দক্ষিণ-দক্ষিণ পূর্বদিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ী দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এ জন্য এসব এলাকার বন্দরগুলোকে ১ নং সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

(ঊষার আলো-এমএনএস)