জাতিসংঘ চাইলে ফিলিস্তিনে সেনা পাঠাতে প্রস্তুত মালয়েশিয়া

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : ফিলিস্তিনের গাজায় ইসরায়েলের বর্বোরোচিত হামলায় এখন পর্যন্ত ২১২ ফিলিস্তিনির মৃত্যু হয়েছে, তাদের মধ্যে ৬১টি শিশু রয়েছে। এত মৃত্যুর পরেও থামছে না ইসরায়েলের হামলা। বরং গাজায় হামলা অব্যাহত থাকবে বলে ঘোষণা দিয়ে রেখেছে ইসরায়েলের অন্তর্র্বতী প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহু।
এই পরিস্থিতিতে ফিলিস্তিনে শান্তি রক্ষায় সেনা পাঠানোর জন্য নিজেদের প্রস্তুতির কথা জানিয়েছে মালয়েশিয়া। ১৭ মে সোমবার দেশটি জানিয়েছে, তাদের সেনাবাহিনীরা প্রস্তুত রয়েছে। মালয়েশিয়ার গণমাধ্যম স্ট্রেইটস টাইমস জানায়, জাতিসংঘ চাইলে তারা শিগগিরই ফিলিস্তিনে সেনা পাঠানো হবে বলে মালয়েশিয়া নিশ্চিত করেছেন ।
এ বিষয়ে মালয়েশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব বলেন, যদি জাতিসংঘ অনুরোধ জানায় তাহলে গাজায় শান্তিরক্ষী পাঠাতে প্রস্তুত রয়েছে তার দেশ। যেহেতু এখানে আন্তর্জাতিক আইনের বিষয় রয়েছে তাই মধ্যপ্রাচ্যে শান্তিরক্ষী টিম পাঠানোর ব্যাপারে মালয়েশিয়া একক কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারে না বলেও জানিয়েছেন তিনি ।
তিনি বলেছেন, জাতিসংঘ যদি সিদ্ধান্ত নেয় যে, আমাদের সেনা সেখানে যাবে তাহলে আমরা দ্রুত তাদের সেখানে পাঠাতে পারব ইনশাল্লাহ।
এদিকে ফিলিস্তিনিদের সুরক্ষা এবং মঙ্গল কামনায় ১৭ মে সোমবার বাদ মাগরিব মালয়েশিয়ার জাতীয় মসজিদ ‘মসজিদ নেগারা’সহ দেশের প্রতিটি মসজিদ ও সুরাউতে সালাতুল হাজতের নামাজ আদায় শেষে মোনাজাতের মাধ্যমে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে।
মালয়েশিয়ার গণমাধ্যমগুলো আরও জানিয়েছে, মালয়েশিয়ার রাজা ইয়াং ডি-পারতুয়ান আগোং আল-সুলতান আবদুল্লাহ রি’আয়াতুদ্দিন আল-মুস্তফা বিল্লাহ শাহ ও স্ত্রী রাজ দরবার মসজিদে ফিলিস্তিনিদের সুরক্ষার জন্য সালাতুল হাজতের নামাজ আদায় করে।

(ঊষার আলো- এম.এইচ)