জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে পোল্ট্রি শিল্প মালিক সমিতি’র প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : পোল্ট্রি-ডেয়ারী-মৎস্য শিল্পের পশুখাদ্যের উপকরণ সয়াবিন-ভুট্টা বেশিরভাগ আমদানিকৃত পণ্য। সেই সয়াবিনই রপ্তানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। ফলশ্রুতিতে পশুখাদ্যের মূল্য ৮-১০ টাকা বৃদ্ধি পাওয়ায় মুরগীর ডিম, মাংস, দুধ ও মাছের উৎপাদন খরচ বাড়লেও আনুপাতিক হারে বাড়েনি বাজার মূল্য। ফলে একদিকে প্রান্তিক ক্ষুদ্র-মাঝারী খামারী-ব্যবসায়ীরা চরম ক্ষতির মধ্যে পড়েছে অন্যদিকে ভোক্তা সাধারণরাও বাড়তি দামে কিনতে বাধ্য হচ্ছেন।

মহামারী করোনা ভাইরাসের ক্ষতির পর যখন খামারী-ব্যবসায়ীরা ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে ঠিক তখনই বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এহেন অযৌক্তিক সিদ্ধান্ত মরার উপর খাড়ার ঘায়ের মত। বহুজাতিক কোম্পানি ও দেশী-বিদেশী ব্যবসায়ীরা মন্ত্রণালয়ের সাথে যোগসাজসে এই ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। এর প্রতিবাদ, উক্ত সয়াবিন রপ্তানির সিদ্ধান্ত বাতিল ও খুলনায় কৃষিজ ভিলেজ লাইভ স্টক এলাকার আদলে পাইকারী মুরগীর ডিম, মাংস, দুধের বাজার স্থাপনের দাবীতে রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৪টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে বাংলাদেশ পোল্ট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ এসোসিয়েশন খুলনা বিভাগীয় শাখা কমিটি ও খুলনা পোল্ট্রি ফিশ ফিড শিল্প মালিক সমিতি’র নেতৃবৃন্দ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী, বাণিজ্য মন্ত্রী ও কৃষিমন্ত্রী বরাবরে খুলনা জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান তালুকদারের মাধ্যমে স্মারকলিপি প্রদান করেন।

এ সময়ে তিনি সমিতির নেতৃবৃন্দের বক্তব্য ধৈর্যসহকারে শোনেন এবং দাবির প্রতি সহমত পোষণ করে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে স্মারকলিপি প্রেরণের ব্যবস্থা করেন। একই সাথে খুলনায় কৃষিজ ভিলেজ লাইভ স্টক এলাকার আদলে পাইকারী মুরগীর ডিম, মাংস, দুধের বাজার স্থাপনে তিনি সহযোগিতা ও ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।

এ সময়ে সমিতির নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সভাপতি আলহাজ্ব মাওলানা ইব্রাহিম ফয়জুল্লাহ, কেন্দ্রীয় প্রচার-প্রকাশনা সম্পাদক ও খুলনার মহাসচিব প্রাণিপ্রেমী এস এম সোহরাব হোসেন, সাবেক সভাপতি মোঃ সালাহউদ্দিন, সহ-সভাপতি শেখ রেজানুল ইসলাম ও মোঃ তরিকুল ইসলাম, যুগ্ম মহাসচিব মোঃ আরিফুর রহমান বাবু, কোষাধ্যাক্ষ মোঃ মামুনুর রহমান, প্রচার সম্পাদক শেখ আব্দুল হালিম, নির্বাহী সদস্য শাহ জাফর মাহমুদ মেহেতা প্রমুখ।

(ঊষার আলো-এমএনএস)