ডুমুরিয়ায় সিএনজি-ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ৫

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো রিপোর্ট : ডুমুরিয়ায় একটি সিএনজি খাদে পড়ে নিহত হয়েছেন ৫ জন। শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুর সোয়া ১টায় খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের পূর্ব জিলেরডাঙ্গা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, সিএনজি চালক ডুমুরিয়ার শরাফপুরের জাকারিয়া সরদারের পুত্র ইলিয়াস সরদার (৪৫), একই গ্রামের বাবু (২৮) ও তার স্ত্রী শিউলী (২০) এবং রুদাঘরা গ্রামের মহিউদ্দিনের কন্যা রেশমা খাতুন (৪৫)

ডুমুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ ওবায়দুর রহমান বলেন, একটি বালু ভর্তি ট্রাক (সাতক্ষীরা ই-১১-০৩৯৪) এবং একটি সিএনজি খুলনার দিকে যাচ্ছিল। সিএনজিটি ট্রাকটিকে ওভারটেক করতে গেলে ট্রাকের বাম্পারে আটকে যায়। এ সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাক ও সিএনজি খাদে পড়ে যায়। সেখান থেকে রেশমা নামে এক নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়। সিএনজির ওপর বালু ভর্তি ট্রাক পড়ায় সেটি পানির নিচে ডুবে যায়। যার ফলে সিএনজি থেকে কেউ বের হতে পারেনি। পরে ডুমুরিয়া ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা প্রায় ৪ ঘণ্টা চেষ্টার পর পানির ভেতর থেকে আরও তিন জনের মরদেহ উদ্ধার করে। সিএনজিটি উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। এখনও এক শিশু ডোবায় থাকার সম্ভাবনা আছে। ট্রাক চালক রাকিব শেখকে আটক করা হয়েছে। সে দিঘলিয়া উপজেলার মহসীন শেখের পুত্র।

এদিকে দুর্ঘটনার পর উদ্ধার কাজ চলার জন্য খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়ক প্রায় ৪ ঘণ্টা বন্ধ থাকায় চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। যার ফলে রাস্তার দুই পাশে আটকা পড়ে শত-শত যানবাহন। বিকেল ৫টায় উদ্ধার কাজ শেষ হওয়ার পর সড়কটি খুলে দেয়া হয়।

খর্ণিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী হাসান বলেন, ইতিপূর্বেই দুর্ঘটনায় নিহত চারজনের লাশ উদ্ধার করে ডুমুরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে। অপর নিঁখোজ শিশুটির লাশ কিছু সময় আগে উদ্ধার করা গেছে। শিশুটি গজেন্দ্রপুরের রিজাউল গাজীর মেয়ে শারমিন।

(ঊষার আলো-এমএনএস)