দাঁতের যত্নে বেকিং সোডা

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : বিভিন্ন কাজে আমরা বেকিং সোডা ব্যবহার করি। এই বেকিং সোডাই হল মূলত খাবার সোডা।

আসুন জেনে নিন রূপচর্চা বা চুলচর্চার বাইরেও কতভাবে বেকিং সোডা ব্যবহার করা যায়-

১•  দাঁতের যত্নের ক্ষেত্রে বা দাঁতের যেকোনো সমস্যা সমাধানে বেকিং সোডা বেশ কার্যকর। দাঁতের কালো দাগ দূর করার পাশাপাশি মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে সাহায্য করে এটি।

২•  এক চামচ বেকিং সোডা হালকা গরম পানিতে মেশান ও ফল ও সবজি এ পানিতে পরিষ্কার করে নিন। ময়লা ও কীটনাশক দূর করতে এটি চমৎকারভাবে কাজ করে।

৩•  এক টেবিল চামচ বেকিং সোডা গরম পানিতে নিয়ে ধাতব ট্যাপ কিংবা বেসিন পরিষ্কার করে নিতে পারবেন।

৪•  কাপড় নরম করে ও ঘামের গন্ধ দূর করতে কাপড় ধোয়ার সময় ডিটারজেন্টের সাথে বেকিং সোডা মিশিয়ে ব্যবহার করুন। শার্টের কলার ও হাতা থেকে ময়লা দূর করে অতি সহজে।

৫•  রান্নাঘর পরিষ্কার করতে ও রান্নাঘরের আসবাব ঝকঝক রাখতে বেকিং সোডার বিকল্প নেই। একটি ছোট পাত্রে ১ চা চামচ বেকিং সোডা নিয়ে ফ্রিজে রেখে দিন গন্ধ দূর হবে।

৬•  এক টুকরা ভেজা স্পঞ্জে কিছুটা বেকিং সোডা নিয়ে সেটা দিয়ে ফার্নিচার পরিষ্কার করুন, ফার্নিচার ঝকঝকে হয়ে যাবে।

৭•  গলা-ঘাড়ের বিরক্তিকর কালো দাগ দূর করতে ২ টেবিল চামচ বেকিং সোডা এবং সামান্য পানি মিশিয়ে তিন মিনিট ঘষুন ও শুকানোর জন্য কয়েক মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর ধুয়ে ময়েশ্চারাইজার ক্রিম কিংবা অলিভ অয়েল লাগিয়ে নিন।

বেকিং সোডা সব ধরনের কাজে ব্যবহার করলেও, চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া তা খাওয়া যাবে না।

(ঊষার আলো-এফএসপি)