ধর্ষণ-হত্যা মামলায় ফাঁসিপ্রাপ্ত মিন্টু-আজিজুলের দাফন পাশাপাশি

সর্বশেষ আপডেটঃ

যশোর প্রতিনিধি : যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে মিন্টু ওরফে কালু ও আজিজ ওরফে আজিজুলের ফাঁসি সোমবার (৪ অক্টোবর) রাত ১০টা ৪৫ মিনিটে কার্যকর করা হয়েছে। আনুষ্ঠানিকতা শেষে রাতেই দুই জনের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে কারা কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) সকালে নিজ বাড়ি চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার খাসকররা ইউনিয়নের রায়লক্ষ্মীপুর গ্রামে জানাজা শেষে তাদের দাফন সম্পন্ন হয়। দুই জনকে পাশাপাশি দাফন করেছে স্বজনরা।

যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার তুহিন কান্তি খান বলেন, ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় দণ্ডপ্রাপ্ত দুই জনের ফাঁসি কার্যকরের জন্য কয়েক দিন ধরে প্রস্তুতি নেয়া হয়। তাদের স্বজনরা গত শনিবার যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে এসে শেষবারের মতো দেখা করেন। দুই পরিবারের অর্ধশতাধিক মানুষের সঙ্গে তাদের দেখা করানো হয়।

উল্লেখ্য, চুয়াডাঙ্গা আদালত সূত্র ও মামলার বিবরণীতে জানা যায়, আলমডাঙ্গা থানার জোড়গাছা হাজিরপাড়া গ্রামের কমলা খাতুন ও তার বান্ধবী ফিঙ্গে বেগমকে ২০০৩ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর রায়লক্ষ্মীপুর গ্রামের মাঠে হত্যা করা হয়। হত্যার আগে তাদের ধর্ষণ করা হয় বলে পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। গলায় গামছা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধের পর মৃত্যু নিশ্চিত করতে ওই দুই নারীর গলাকাটা হয়।

এ ঘটনায় এক নারীর মেয়ে বাদী হয়ে পরদিন আলমডাঙ্গা থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত ওই দুই জনসহ চারজনকে আসামি করা হয়। অপর দুই জন হলেন-একই গ্রামের সুজন ও মহি।

(ঊষার আলো-এমএনএস)