নিখিলের বিরুদ্ধে ছেলে বন্ধুর সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার অভিযোগ

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : ছেলে বন্ধুর সাথে নিখিল জৈনর ঘনিষ্ঠতার খবর বের হতেই যেন আগুনে ঘি পড়েলো।

নিখিল জানিয়েছেন, যশ দাশগুপ্তের সাথে সম্পর্ক ও সন্তান জন্ম দিয়ে ট্রলের শিকার হয়েছেন নুসরাত জাহান। আর তাই মুখ বাঁচাতে নুসরাত তার বিরুদ্ধে নোংরা অভিযোগ করছেন। গত ডিসেম্বর মাস থেকেই আলাদা আছেন নিখিল-নুসরাত। কিন্তু এ নিয়ে সংবাদমাধ্যমে খুব একটা মুখ খোলেননি তিনি। সম্প্রতি নুসরাতের ঘনিষ্ঠ মহল থেকে জানা যায়, নিখিল উভকামী। তাই বিয়ের সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসেন নুসরাত।

বিয়ের কয়েক মাস পরই ২০১৯ সালে নভেম্বর মাসে নুসরাতের হাসপাতালে ভর্তির খবরটি চাউর হয়েছিল। শোনা যায়, জন্মদিনের পরেই নাকি তিনি ঘুমের ওষুধ খেয়েছিলেন। নিখিলের জন্মদিনের রাতেই নাকি নিখিল ও তার ছেলে বন্ধুকে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় দেখে ফেলেন নুসরাত। এমনকি নিখিলের বিবাহিত বন্ধুর স্ত্রীও নাকি তাদের ঘনিষ্ঠতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন ও শেষমেষ তাদের ডিভোর্স হয়ে যায়।

তবে নিখিল জানান, এইসব ইন্ডাস্ট্রির লোকজনের একটি ভুল ধারণা। আর এটা পুরোপুরি মিথ্যে কথা, আমি পুরোপুরি স্ট্রেট। টলিউডের অনেকেই নিজের মতো করে স্টোরি বানায় লাইমলাইটে থাকার জন্য। আমার নামে পুরো মিথ্যে রটানো হচ্ছে। নুসরাত নিজের মুখ লুকাতে চেষ্টা করছে, কারণ একাধিকবার মাথার সিঁদুর এবং সন্তানের জন্য ট্রোলড হয়েছে নুসরাত। আর এখন মিথ্যে অভিযোগ এনে আমার দিকে আঙুল তোলার চেষ্টা করছে।

তবে যদিও নুসরাতের ঘনিষ্ঠমহল তা মানতে নারাজ। তারা বলছে, একাধিক রূপান্তরকামীদের সাথে সম্পর্ক আছে নিখিলের। আর সে কথা নুসরাত জানার পর থেকেই তাদের মধ্যে ঝামেলার সূত্রপাত। ঘনিষ্ঠমহলের আরও দাবি যে, নিখিল বেশিরভাগ সময়েই নেশাগ্রস্ত থাকতেন। রাত করে বাড়ি ফিরে নেশার ঘোরে বাথরুমেই ঘুমিয়ে পড়তেন তিনি। এই সব কিছু সহ্য করতে না পেরে বিয়ে ভাঙার সিদ্ধান্ত নেন নুসরাত।

(ঊষার আলো-এফএসপি)