নিজ এলাকায় পরীক্ষাতে শিক্ষার্থীসহ অভিভাবকরা খুশি

সর্বশেষ আপডেটঃ

এম এন আলী শিপলু : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ভর্তি পরীক্ষা প্রথমবারের মতো খুলনায় অনুষ্ঠিত হওয়ায় খুশিতে উচ্ছ্বসিত ভর্তি ইচ্ছুক শিক্ষার্থীসহ অভিভাবকরা। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় উপকেন্দ্রে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক/স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে স্ব-শরীরে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। শুক্রবার (১ অক্টোবর) বেলা ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ছাড়াও আরও ৩টি পৃথক স্থানে অনুষ্ঠিত হয়।

কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে এটা ভালো সিদ্ধান্ত। কারণ, এই হাজার-হাজার শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের ঢাকায় যেতে যে ভোগান্তি ও আর্থিক ব্যয় হয় তা থেকে এবার তারা পরিত্রাণ পাচ্ছেন। অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা খুবই ইতিবাচকভাবে নিয়েছেন এই বিভাগীয় শহরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার বিকেন্দ্রীকরণ নিয়ে।

পরীক্ষা শেষে বড় বোনের সাথে বাড়ি ফিরেছিলেন যুথী। তার অনুভুতি জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঢাকায় গিয়ে পরীক্ষা দিলে অনেক কষ্ট হয়। যানজটের কারণে সীমাহীন ভোগান্তি তো আছেই। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা প্রথমবারের মতো খুলনাসহ সারা দেশে অনুষ্ঠিত হওয়ায় এটা এক অন্যরকম ব্যাপার। কোনো ধরনের ভোগান্তি ছাড়াই নির্বিঘ্নে পরীক্ষা দিতে পেরেছি। সবাই মাস্ক পরে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই পরীক্ষা দিয়েছে।

বাগেরহাট থেকে মেয়েকে নিয়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে আসেন ব্যবসায়ী সাইদুর রহমান। তিনি বলেন, আমরা ছয়জন একসাথে মাইক্রো ভাড়া করে এসেছি। কোথাও যানজট না থাকলেও শহরে প্রবেশের সময় মারাত্মক যানজটের সৃষ্টি হওয়ায় ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে। এছাড়া অধিক সংখ্যক শিক্ষার্থী এবং অভিভাবক একসাথে আসায় সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মানাটাও কঠিন ছিল। তবে, প্রশাসন ছিল তৎপর।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় উপকেন্দ্র ও এর অধীন শহরে আরও ৩টি কেন্দ্রে অত্যন্ত সুন্দর পরিবেশে সুষ্ঠুভাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

তিন আরও বলেন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় উপকেন্দ্রে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলেও আমরা সবাই নিজেদের পরীক্ষা মনে করেই দায়িত্ব পালন করছি। এখানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিও আছেন। আমরা আশা করছি এই সাফল্য কেবল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নয়, অন্যান্য বড় বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ভবিষ্যতে পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কথা বিবেচনা করে এমন পদক্ষেপ নেবেন। আগামীতে শিক্ষার্থীদের আর সারাদেশে ছোটাছুটি করতে হবে না। এছাড়া আগামী ২ অক্টোবর ‘খ’ ইউনিট, ৯ অক্টোবর ‘চ’ ইউনিট, ২২ অক্টোবর ‘গ’ ইউনিট এবং ২৩ অক্টোবর ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

(ঊষার আলো-এমএনএস)