নোংরা আবর্জনার দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী, নজরদারীর অভাব

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো প্রতিবেদক : নগরীর দৌলতপুর এলাকার বসবাসকারী মানুষের মধ্যে সচেতনতা না থাকার দরুন পরিচ্ছন্ন নগরীটি ক্রমশ: নোংরা আর দুর্গন্ধময় হয়ে উঠছে। ঘর থেকে বের হলেই দেখা মিলছে রাস্তার ওপর পড়ে থাকা ময়লা আবর্জনার ছোট-বড় স্তুপ। রাস্তার ওপর পড়ে থাকা এ বর্জ্য আবর্জনাগুলো কুকুর টেনে এনে রাস্তাকে আরও নোংরা করে তুলছে। ডাস্টবিন থাকা সত্বেও অপরিকল্পিতভাবে যেখানে-সেখানে আবর্জনা ফেলার কারণে এলাকা নোংরা আর দুর্গন্ধময় হয়ে উঠেছে। এমনই চিত্র উঠে এসেছে এলাকার বিভিন্ন স্থানে। যেখানে-সেখানে পড়ে থাকা শত-শত পলিথিন, প্লাস্টিকের বোতল আর গৃহস্থালির উচ্ছিষ্ট আবর্জনা চরম নোংরা করছে পরিবেশ, যা পরিবেশকে চরম হুমকির মুখে ফলছে।

সরেজমিনে, দেয়ানা বাউন্ডারী রোডের পুরাতন কল্পতরু মার্কেটের উত্তর-পশ্চিমপাশে বিশাল ময়লার স্তুপ, কল্পতরু মার্কেট সংলগ্ন তিনরাস্তার মোড়, নতুনরাস্তা মোড়স্থ থানা নির্বাচনী অফিস সম্মুখ, সুলতালা ফিলিং স্টেশনের বিপরীতে মেইন সড়কের কন্টেইনার সহ আশাপাশের আবাসিক বাসা বাড়ী হতে এসে এসকল স্থানে ইচ্ছা স্বাধীন ভাবে প্রকাশ্যে ময়লা ফেলছে। যদিও খুলনা সিটি কর্পোরেশন দৌলতপুর থানাধীন প্রতিটি ওয়ার্ডের রাস্তাঘাট আর্বজনামুক্ত রাখতে কন্টেইনার ড্রামসহ বিপুল পরিমানে বিন হস্তান্তর করলেও তার পরিকল্পিত ব্যবহার করতে নারাজ দৌলতপুরের অধিকাংশ এলাকার অসচেতন মহল। দৌলতপুর থানাধীন প্রতিটি ওয়ার্ডে নির্দিষ্ট স্থানে ডাস্টবিন স্থাপন করলেও এলাকার বাসিন্দারা ডাস্টবিন ব্যবহার না করে সরাসরি রাস্তার ওপর আবর্জনা ছুড়ে মেরে রাস্তাসহ সমগ্র এলাকা দুর্গন্ধময় করে তুলছে। নোংরা এ ময়লা আর্বজনার দুর্গন্ধে সমগ্র এলাকা পরিবেশ বিষাক্ত আর দুর্গন্ধময় হয়ে উঠছে। পরিচ্ছন্ন কর্মীরা নিয়মিত বর্জ্য অপসারনের জন্য কাজ করলেও পরিত্রাণ মিলছেনা দুর্গন্ধ হতে।

ঋষিপাড়ার স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, চোখের সামনে ছোট বড় ময়লার স্তুপ। এই রাস্তাদিয়ে চলাচল করতে হলে মুখে রুমাল ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক। প্রতিদিনই আশপাশের আবাসিক বাসা থেকে বিভিন্ন বর্জ্য ময়লা ডাস্টবিনে ফেলার কারণে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। এটা যেন দেখার কেউ নেই।

এ বিষয়ে ৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শেখ মোহাম্মদ আলী বলেন, ৫নং ওয়ার্ডে এ বর্জ্য নিষ্কাষনের কন্টিনার, বর্জ্য সরবরাহ ড্রাম দেয়া হয়েছে কেসিসির পক্ষ হতে। এছাড়া কেসিসির পক্ষ হতে বিভিন্ন ওয়ার্ডে আবাসিক বা ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠানের জন্য বিপুল সংখ্যক বিন প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া বাসা বাড়িতে গিয়ে ময়লা আনা হয় তারপরও কিছু সংখ্যাক অসচেতন মহল যেখানে-সেখানে ময়লা ফেলে পরিবেশ দূষিত করছে। এতে করে পথচারীদের বেশ দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

(ঊষার আলো-এমএনএস)