পরিবহণের ধাক্কায় কাঠ ব্যবসায়ীর মৃত্যু

সর্বশেষ আপডেটঃ

মোঃ মেহেদী হাসান, মণিরামপুর : যশোরের মণিরামপুরে পরিবহণের ধাক্কায় সাহাবুদ্দিন (৪০) নামে এক কাঠ ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন তার ছোটভাই মঈনুদ্দিন (৩৫)।

সোমবার (১৬ আগষ্ট) সকাল আটটার দিকে যশোর-চুকনগর সড়কের সুন্দলপুর দিপ্র ইটভাটার সামনে ঘটনাটি ঘটে। হতাহতরা উপজেলার মাঝলাউড়ি গ্রামের সিরাজুল ইসলাম খোকার ছেলে। এদিকে চিনাটোলা বাজারে বাস ফেলে পালিয়েছেন চালক, হেলপার ও সুপারভাইজার। জনগণ বাসটি (ঢাকা মেট্রো-ব ১৪-৭৭০০) আটক করে পুলিশে দিয়েছেন । প্রত্যক্ষদর্শী মাসুদ রানা বলেন, আমি ঘটনাস্থলের পাশে দাঁড়িয়ে কথা বলছিলাম। হঠাৎ বিকট শব্দ শুনে সামনে তাকিয়ে দেখি মোটরসাইকেল পড়ে আছে। পাশে দুইজন পড়ে ছটফট করছেন।এগিয়ে যেয়ে দেখি একজন মারা গেছেন। অন্যজনরে আমরা ভ্যানে তুলে হাসপাতালে পাঠাইছি। রাস্তা ভাঙা হওয়ায় পরিবহণটি বাঁক নিতে গিয়ে মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দেয়। নিহতের চাচা শহিদুল ইসলাম বলেন, সকালে মইন ও সাহাবুদ্দিন মোটরসাইকেলে করে মনিরামপুর বাজারে যাচ্ছিলেন। মইন মোটরসাইকেল চালাচ্ছিলেন। পিছনে বসা ছিলেন সাহাবুদ্দিন। পথিমধ্যে দিপ্র ইটভাটার সামনে বাসের ধাক্কায় সাহাবুদ্দিন মারা গেছে। আহত মঈনুদ্দিনকে যশোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার স্যালাইন চলছে।
মণিরামপুর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক দিবাকর ম-লের বরাত দিয়ে ওয়ার্ডবয় আশীষ দাস বলেন, ফায়ারসার্ভিসের কর্মীরা মইনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে এনেছেন। তাঁর ডান পায়ে হাঁটুর নিচে দুইস্থানে ভেঙেছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য মইনকে যশোর সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।
মণিরামপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শিকদার মতিয়ার রহমান দুর্ঘটনায় দুই ভাইয়ের হতাহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, মামুন পরিবহণের ঘাতক বাসটি আমাদের হেফাজতে আছে। চালক ও হেলপার পলাতক রয়েছে।