পিরোজপুরের কাউখালীর চিরাপাড়া বেকুটিয়া রাস্তার বেহাল দশা

সর্বশেষ আপডেটঃ

পিরোজপুর প্রতিনিধি : কাউখালীর চিরাপাড়া বেকুটিয়া সড়কটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। ঝুঁকি নিয়েই চলছে রিক্সা ও গাড়ি ও ছোট বড় যানবাহন। পিচ উঠে সড়কের বিভিন্ন জায়গায় ছোট বড় গর্ত সৃষ্টি হয়ে চড়ম ভোগান্তিতে পোহাচ্ছে সাধারণ মানুষ। এ রাস্তাটির পিচ, বিটুমিন ও খোয়া উঠে অসংখ্য ছোট-বড় গর্ত আর খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। এতে প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা। পথচারী, গাড়িচালক ও যাত্রীদের দুর্ভোগ পৌঁছেছে চরমে। দীর্ঘদিন ধরে সড়কের এমন বাজে অবস্থা দেখার কেউ নেই।
গাড়িচালক এবং স্থানীয় ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেছেন, এ রাস্তাটি সর্বশেষ সংস্করের সময় প্রতিপক্ষের সঠিক নজরদারী না থাকা ও ঠিকাদারদের সাথে প্রতিপক্ষের অবৈধ যোগসাদৃশ্যের ফলে নি¤œ মানের মালামাল, স্বল্প ভিটুমিন পিচ দিয়ে সিডিউল মত কাজ না করায় দ্রুত সময়ের ভিতরে রাস্তা পিচ খোয়া ওঠে খানা খন্দনে সৃষ্টি হয়ে চলাচলের ঝুঁকি হয়ে পড়েছে।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, রাস্তাটি খালের তীরবর্র্তী অংশগুলো অধিকাংশ জায়গা থেকে রাস্তা ভেঙ্গে গর্ত হয়ে সংক্রচিত হয়ে গেছে। যার ফলে একই সাথে দুটি রিক্সা ও গাড়ি পাশাপাশি চলতে পারছে না। একটি গাড়ি অপর গাড়িকে সাইড দিয়ে গেলে পড়ছে ছোটখালো দুরর্ঘটনা। যার ফলে কাউখালী বেকুটিয়া এই সংক্ষিপ্ত সড়কে যান চলাচল করতে না পেরে কাউখালীর শিয়ালকাঠী চৌরাস্তা ঘুরে প্রায় ৩ থেকে ৪ কিলোমিটার রাস্তা বেশি ঘুরে পিরোজপুর-খুলনাগামী যাত্রী সাধারণের যেতে হয়। অন্যদিকে নিলতী গাজীরুলা বেকুটিয়া সুবিদপুর এই সমস্ত গ্রামের বিকল্প কোন রাস্তা না থাকায় স্কুল কলেজ হাসপাতাল, হাট- বাজার ও কৃষকদের কৃষি পন্য নিয়ে এই রাস্তা থেকেই উপজেলা সদরে অথবা পিরোজপুর কিংবা বরিশাল যাতায়াত করতে হয়। অনেক সময় দেখা যায় অসুস্থ রোগী এমনকি গর্ভবতী মায়েদের এ্যাম্বুলেন্স কিংবা গাড়ীতে চিকিৎসার জন্য চড়ম ঝুঁকি নিয়েই যেতে হয়। এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি সড়কটি নতুনভাবে সংস্কারের মাধ্যমে রিকসা গাড়ী স্বাভাবিক ভাবে চলাচলের উপযোগী করে সংস্কার করার।
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী মোস্তাক আহাম্মেদ জানান, রাস্তাটি চলাচলের ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে টেন্ডারের ব্যবস্থা করা হয়েছে, দ্রুত সময়ের মধ্যেই সংস্কার কাজ শুরু করা হবে।