পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

সর্বশেষ আপডেটঃ

পিরোজপুর প্রতিনিধি : পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় জান্নাতুল ফেরদৌস মুনমুন নামের এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। তবে পরিবারের সদস্যদের দাবী হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।

এ অভিযোগের ভিত্তিতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ নিহতের স্বামী সুমন হাওলাদারকে আটক করেছেন। নিহত গৃহবধু মুনমুন কাউখালী উপজেলার কেউন্দিয়া গ্রামের আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গিরের মেয়ে। সোমবার (৩০ আগস্ট) সকাল ১০টার দিকে নিহত মুনমুনের মরদেহটি তার ভান্ডারিয়া উপজেলায় স্বামীর বাড়ির নিজ ঘরের জানালার সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় ও মুনমুনের পারিবারিক সূত্রে জানাগেছে, গত ৫ বছর আগে ভান্ডারিয়া পৌর এলাকার কানুয়া গ্রামের সোহরাব হোসেন হাওলাদারের ছেলে সুমন হাওলাদারের সাথে মুনমুনের বিয়ে হয়। মুনমুনের বিয়ের পর থেকে প্রায়ই মারধর করতো পাষন্ড স্বামী সুমন।

সোমবার সকালে সুমনের এক প্রতিবেশী মুনমুনের বোন স্নিগ্ধাকে জানান, তার বোনের লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে। পরে তারা এসে পুলিশে সংবাদ দিলে পুলিশ সরজেমিনে এসে ঘরের জানালার উপরে দড়িতে ঝুলন্ত অবস্থায় লাশ উদ্ধার করে ভান্ডারিয়া থানায় নিয়ে যায়। নিহতের তাসমিয়া আক্তার নামের ৩ বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

নিহতের চাচা শহিদ রেজা উজ্জাব ডাকুয়া জানান, মুনমুন আত্মহত্যা করতে পারে না। তাকে হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।

ভান্ডারিয়া থানার ওসি মো: মাসুমুর রহমান বিশ্বাস জানান, গৃহবধুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মুনমুনের স্বামী সুমনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

(ঊষার আলো-এমএনএস)