বজ্রপাতে সারাদেশে ১৯ জনের মৃত্যু

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো রিপাের্ট : বজ্রপাতে সারাদেশে ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। রোববার (৬ জুন) সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বজ্রপাতে এ প্রাণহানী হয়। এর মধ্যে খুলনা বিভাগের চুয়াডাঙ্গায় ও মেহেরপুরে ২, সিরাজগঞ্জে ৫, বরিশালে ১, চট্টগ্রামে ৫, মাদারীপুরে ১, নাটোরে ১, পটুয়াখালী ২, বগুড়া ১ ও নোয়াখালীতে ১ জনের মৃত্যু হয়।
চুয়াডাঙ্গা : চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার রুইথনপুর গ্রামের দক্ষিণ মাঠে বজ্রপাতে কোরবান আলী নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। কোরবান একই উপজেলার চিৎলা ইউনিয়নের রুইথনপুর গ্রামের মৃত ফকির আলীর ছেলে।
মেহেরপুর: বজ্রপাতে মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার দারিয়াপুর ইউনিয়নের পুরুন্দরপুর গ্রামে ফরিদ নওদা (৫০) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। ফরিদ ওই গ্রামের মৃত বকস নওদারের ছেলে।
সিরাজগঞ্জ: বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া, শাহজাদপুর ও বেলকুচি উপজেলায় বজ্রপাতে স্কুলছাত্রসহ পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতরা হলেন, উল্লাপাড়ার আগদিঘল গ্রামের নবম শ্রেণির ছাত্র ফরিদুল ইসলাম, বেলকুচির চর সমেশপুর গ্রামের লাইলি বেগম, সলঙ্গার আঙ্গারু গ্রামের রফিকুল ইসলাম, শাহজাদপুর উপজেলার চর আঙ্গারু গ্রামের কৃষক জুয়েল রানা ও বাতিয়া গ্রামের কৃষক আলহাজ পণ্ডিত।
বরিশাল: বরিশালের উজিরপুর উপজেলার সাতলা ইউনিয়নে সাতলা গ্রামে বজ্রপাতে নান্টু বালী (৩০) নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছেন সুমন খান (২৬) নামে আরেক শ্রমিক। বজ্রপাতে মৃত নান্টু ওই গ্রামে ইউনুস বালীর ছেলে। আহত সুমন একই এলাকার পল্টু খানের ছেলে।
চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামের মিরসরাই, বোয়ালখালী, ফটিকছড়ি ও সীতাকুণ্ড উপজেলায় বজ্রপাতে পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতরা হলেন, মিরসরাইয়ের সাহেরখালী ইউনিয়নের ৯ নম্বর পূর্ব ডোমখালী ওয়ার্ড এলাকার স্কুলছাত্র সাজ্জাদ হোসেন (১৬), বোয়ালখালীর জ্যৈষ্ঠপুরা শ্রীপুর-খরণদ্বীপ ইউনিয়নের জ্যৈষ্ঠপুরা গ্রামের মো. জাহাঙ্গীর (৩৯), ফটিকছড়ির কাঞ্চননগর ইউনিয়নের ৮ নম্বর মানিকপুর ওয়ার্ডের ডলুরপাড়া এলাকার যোগেন্দ্র শীলের স্ত্রী ভানুমতি শীল (৪০), বাণেশ্বর দাশের স্ত্রী লাকি রানি দাশ (৩৮) ও সীতাকুণ্ড উপজেলার বার আউলিয়া এলাকার সীতাকুণ্ড উপজেলার বার আউলিয়া এলাকার আব্দুল কাদেরের বাড়ির মৃত নুরুল আলমের মো. জলিল আহাম্মদ (৪০)। এ চার উপজেলায় বজ্রপাতের ঘটনায় আহত হয়েছেন তিনজন।
মাদারীপুর: মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার চরজানাজাত ইউনিয়নের হাওলাদারকান্দি বালুরটেক এলাকায় বজ্রপাতে আয়শা বেগম (৪৮) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। আয়শা ওই এলাকার ছোরফান হাওলাদারের স্ত্রী।
নাটোর: নাটোরের সিংড়া উপজেলার কলম কাজিপাড়া গ্রামে বজ্রপাতে মো. রাসেল (২২) নামে এক কলেজছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। রাসেল একই উপজেলার হাতিয়ান্দহ ইউনিয়নের আলাদী গ্রামের মো. ওসমান আলীর ছেলে।
পটুয়াখালী: পটুয়াখালীর সদর ও মির্জাগঞ্জ উপজেলায় বজ্রপাতে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতরা হলেন, সদর উপজেলার মরিচবুনিয়ি ইউনিয়নের মরিচবুনিয়া গ্রামের মৃত মোনসের হাওলাদারের ছেলে মজিবার হাওলাদার (৩০) ও মির্জাগঞ্জের জিদবাড়িয়া ইউনিয়নের তারাবুনিয়া গ্রামের সেরজন আলী হাওলাদারের ছেলে আব্দুল জলিল।
বগুড়া: বগুড়ার ধুনট উপজেলায় ঝড়ের মধ্যে আম কুড়াতে গিয়ে বজ্রপাতে আদিল হোসেন (৮) নামে এক শিশু নিহত হয়েছে ৷ এ সময় বজ্রপাতে আরমান হোসেন (৭) নামে অপর এক শিশু আহত হয়। সন্ধ্যা ৬টার দিকে উপজেলার কালেরপাড়া ইউনিয়নের নিত্তিপোতা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে ৷ আদিল হোসেন ওই গ্রামের আব্দুল মোমিনের ছেলে।
নোয়াখালী: নোয়াখালী দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ায় বজ্রপাতে আবদুল মান্নান খোকন (৫৫) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। মৃত মান্নান ওই উপজেলার ৮ নম্বর সোনাদিয়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব মাইজচরা গ্রামে মোল্লাবাড়ীর মৃত মৌলভী সৈয়দ আহমদের ছেলে।

(ঊষার আলো-এমএনএস)