কর্তৃপক্ষের অব্যবস্থাপনা

বাগেরহাটে মজুদ শেষ হওয়ায় টিকা নিতে এসে ভোগান্তিতে শতশত মানুষ

সর্বশেষ আপডেটঃ

বাগেরহাট প্রতিনিধি : বাগেরহাট সদর হাসপাতালে করোনা টিকার মজুদ শেষ হয়েছে, বিষয়টি না জানানোর কারনে শতশত নিবন্ধকারি মানুষ টিকা নিতে এসে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত লাইনে দাড়িয়ে থেকে ফিরে গেছে।

ফিরে যাওয়া এ সব মানুষরা ক্ষোভের সাথে বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগের অব্যবস্থাপনার কারনে আমরা জানতে  না পেরে হাসপাতাল চত্বরে এসে লাইনে দাড়িয়ে থেকে পরে নিরাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছি। টিকা প্রদাকারি বা স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে বলা হয় নি টিকার মজুদ শেষ হয়েছে। পরবর্ত্তিতে আসলে আবার দেয়া হবে। অথচ প্রকাশ্য দিবালোকে হাসপাতাল চত্বরে সকাল থেকে এসে নিবন্ধনকারিরা  দ্বিতীয় ডোজ টিকার জন্য লাইনে দাড়িয়েছি।

বাগেরহাট সদর উপজেলার কাড়াপাড়া ইউনিয়নের পাটর গ্রামের দিন মজুর শেখ আসাদ বলেন, মজুরি বন্ধ রেখে সোমবার সকাল থেকে হাসপাতালে এসে টিকার জন্য লাইনে দাড়িয়েছিলাম। বেলা ১১ টা পর্যন্ত টিকা প্রদান কক্ষ তালাবদ্ধ অবস্থায় দেখতে পেয়ে খোজ খবর নিয়ে জানতে পারি টিকার মজুদ নাই। টিকা দেয়া হবে না।

বৃদ্ধ পিতাকে টিকার দেয়ার জন্য ইজিবাইকে করে হাসপাতালে নিয়ে এসে টিকা না পেয়ে দুপুরে ফিরে যাওয়ার সময় গোটাপাড়া এলাকার শ্যামল দাম বলেন, হাসপাতাল কতৃপক্ষ যদি সকালে জানিয়ে দেয় যে আজ টিকা দেয়া হবে না বা মজুদ নাই তাহলে কোন ভোগান্তি হয় না। শত শত মানুষ কাজ বাদ দিয়ে লাইনে না দাড়িয়ে  বাড়ীতে গিয়ে কাজ করত।  সদরে গোবরদিয়া গ্রামের রমিচা বেগম বলেন সকাল সাড়ে ৭ টা থেকে টিকার জন্য লাইনে দাড়িয়ে ছিলাম। অথচ, কেহ এসে বলেনি তোমরা লাইনে দাড়িয়েছ কেন ?  স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে তো বলতে পারত টিকার মজুদ শেষ আবার আসলে জানানো হবে। তা কেউ বলেনি। পরে অন্যরা চলে গেছে আমিও দুপুরের দিকে চলে এসেছি।

এ ধরনের একাধিক টিকা নিতে আসা ব্যক্তিরা ভোভ প্রকাশ করে জানান, বাগেরহাট হাসপাতাল চত্বরে  সকাল থেকে টিকার জন্য নিবন্ধনকারিরা ল্ইানে দাড়িয়ে আছে। অথচ, টিকার মজুদ শেষ হয়েছে বিষয়টি কেহ এসে আমাদের জানায়নি। এখানের অব্যবস্থাপনার কারনে  শত শত মানুষ ভোগান্তিতে পড়ল।

এ বিষয়ে পরে স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে সাংবাদিকদের বলা হয়, বাগেরহাট সদরের টিকার মজুদ একদিন আগে শেষ হলেও জেলার অন্য উপজেলায় চলমান ছিল বিধায় কোন ঘোষনা দেয়া হয়নি। ফলে সদরের টিকা গ্রহনকারিরা একটু কষ্ট পেয়েছে। বাগেরহাট জেলায় এ পর্যন্ত মোট ২ লাখ ৩৫ হাজার ৭৪৫ জন টিকা নিয়েছেন। এদের মধ্যে প্রথম ডোজ নিয়েছেন ১ লাখ ৫৪ হাজার ২৫৬ জন এবং ২য় ডোজ নিয়েছেন ৮১ হাজার ৪৮৯ জন।

বাগেরহাটের ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ হাবিবুর রহমান গতকাল সাংবাদিকদের বলেন, বাগেরহাট সদর হাসপাতালের টিকাদান কেন্দ্রের মজুদ আগেরদিন শেষ হয়েছে। পরবর্তীতে টিকা প্রাপ্তি স্বাপেক্ষে আবারও যথারীতি টিকা দেওয়া শুরু হবে।  আর নিবন্ধনকারীরা যাতে টিকা নিতে এসে ফিরে না যায় এজন্য আমরা মাইকিং করাসহ টিকাদান কেন্দ্রের সামনে টিকা শেষ লেখা সম্বলিত ব্যানার  লাগিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

 

(ঊষার আলো-আরএম)