বানারীপাড়ায় মাদ্রাসা ছাত্রীর গলায় ওড়না পেঁচানো লাশ উদ্ধার, মৃত্যু নিয়ে রহস্য!

সর্বশেষ আপডেটঃ

রাহাদ সুমন, বানারীপাড়া (বরিশাল) : বরিশালের বানারীপাড়ায় খেজুরবাড়ি গ্রামে অনিকা(১৫) নামের নবম শ্রেণীতে পড়ুয়া এক মাদরাসা ছাত্রীর গলায় ওড়না পেঁচানো লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গলায় ওড়না পেঁচানো থাকলেও ওই ছাত্রীর লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া না যাওয়ায় তার মৃত্যু নিয়ে এলাকায় রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া তার নাক দিয়ে রক্ত পড়ছিলো। জানাগেছে সোমবার (১৬ আগস্ট) সকাল পৌনে ১০টার দিকে অনিকাকে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্খায় নিজ ঘরের সিঁড়িপথের ওপরে তার মা দেখতে পায়।

সকালে পিতা রিক্সা চালাতে ও মা কিস্তি দিতে গেলে অনিকা ঘরে একাই ছিলো বলে জানাগেছে। কিস্তি দিয়ে মা ঘরে ফিরে মেয়েকে ওই অবস্থায় দেখতে পেয়ে চিৎকার দিলে প্রতিবেশী ও স্বজনরা অনিকাকে অচেতন অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেণ।

খবর পেয়ে বানারীপাড়া থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) জাফর আহম্মেদ ও উপ-পরিদর্শক এসআই ওসমান গণি ঘটনাস্থল ও হাসপাতালে যান। প্রথমে পুলিশ ওই ছাত্রীর মৃত্যু রহস্য উদঘাটনে লাশ বরিশাল শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয়ে পাঠানোর উদ্যোগ নেয়।

তবে সলিয়াবাকপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বর আবু তুর্কি টুলু ও অনিকার স্বজনরা তার লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়া দাফনের জন্য জেলা প্রশাসকের অনুমতি নিতে চেষ্টা চালাচ্ছেন বলে জানাগেছে।

ওই ছাত্রীর গলায় ওড়না পেঁচানো ও তার নাক দিয়ে রক্ত বের হওয়ায় এবং তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া না যাওয়ায় এবং ওড়না অক্ষত থাকায় মেধাবী ও ধর্মভীরু ওই ছাত্রীর মৃত্যু নিয়ে এলাকায় রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক খেজুরবাড়ি এলাকার অনেকেই জানান ময়না তদন্ত করলেই অনিকার মৃত্যু রহস্য উদঘাটন হতে পারে।

এ বিষয়ে থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) জাফর আহম্মেদ জানান, ওই ছাত্রীর শ্বাসকষ্ট রোগ ছিলো। সকালে অসুস্থ হয়ে পড়লে হাসপাতালে নেয়ার পথে সে মারা যায়। তবে ছাত্রীর গলায় দাগ ও ওড়না পেঁচানো ছিলো বলে তিনি জানান।

তবে ওই ছাত্রীর পূর্বে শ্বাসকষ্ট ছিল কি না? তা এলাকাবাসী জানাতে পারেনি। স্বজনরা বরিশালে থাকায় এ বিষয়ে তাদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। তবে শ্বাসকষ্ট থাকলেও গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় নাক দিয়ে কেন রক্ত ক্ষরণ হচ্ছিল এ নিয়েও রহস্য থেকেই যায়।

(ঊষার আলো-এমএনএস)