বিএনপির কল সেন্টারে অনুদান গ্রহণকালে

বিনা চিকিৎসায় করোনা আক্রান্ত রোগির মৃত্যুর দায় সরকারের: মঞ্জু

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো রিপোর্ট : খুলনা বিভাগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে বিনা চিকিৎসায় কারো মৃত্যু হলে সে দায় সরকার কোনভাবেই এড়াতে পারেন না। দেশে করোনা সংক্রমণের প্রায় দেড়বছরে সরকার জনগণের স্বাস্থ্য সেবা নিয়ে কথামালার রাজনীতি করেছে। করোনা সংক্রামণের তৃতীয় ঢেউ যখন সর্বোচ্চ পর্যায়ে তখনও সরকার অতিকথন জনগণের সাথে প্রতারণা ছাড়া অন্য কিছু নয় বলেছেন খুলনা মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু। মঙ্গলবার (৬ জুলাই) দুপুরে খুলনা মহানগর বিএনপির কল সেন্টারে বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও যুবদল নেতা হাসান আল মাসুম বাপ্পী দু’টি অক্সিজেন সিলিন্ডার ও অক্সোমিটার, নাম প্রকাশে অনিচ্ছিুক খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকের একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার এবং মৌলভীপাড়ার বাসিন্দা ফরিদা ইয়াসমিনের নগদ টাকা গ্রহনকালে মঞ্জু এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন হাসপাতালে শয্যা, আইসিইউ, অক্সিজেনের চরম সংকট দেখা দিয়েছে। ডাক্তার- নার্স সংকটে প্রতিনিয়ত বাড়ছে মৃত্যু ও সংক্রামণের হার। যখন কোনভাবেই থামছে না আকুতি-স্বজনদের কান্না; তখনও ব্যর্থ সরকার, ব্যর্থ স্বাস্থ্য মন্ত্রাণলয়ের পক্ষে সাফাই গাচ্ছেন। তিনি প্রশ্ন রাখেন বিগত দেড়বছরে কেন মেডিক্যাল কলেজ ও জেলা হাসপাতাল গুলোতে আইসিইউ শয্যা বাড়ানো হলো না? কেন হলো না সেন্ট্রাল অক্সিজেন সিসটেম? জনগণের ট্যাক্স ও করের টাকা থাকতেও কেন তা ব্যর্থ হল? দুর্ণীতি অপচয় লুটপাট কেন বন্ধ করা গেল না? এ সকল ব্যর্থতার জন্য সরকারকে অবশ্যই জবাবদিহি করতে হবে। জনগণের জীবন নিয়ে অবহেলা কখনই দেশের জনগণ মেনে নেবে না উল্লেখ করে বিএনপি নেতা মঞ্জু জনগণের স্বাস্থ্য সেবাকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে শহরের পাড়ায় মহল্লায় আক্রান্তদের সেবায় স্বেচ্ছাসেবক সংগঠন গড়ে তোলার জন্য ছাত্র ও যুব সমাজের প্রতি আহবান জানান। একই সাথে সমাজের বিত্তবান ও রাজনৈতিক কর্মিদের জনগণের স্বাস্থ্য সেবা ও কর্মহীন মানুষের খাদ্য সহয়তা প্রদানের জন্য এগিয়ে আসার আহবান জানান।
এসময় উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান মনি, জাফরউল্লাহ খান সাচ্চু, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, শাহ জালাল বাবলু, আরিফুজ্জামান অপু, আসাদুজ্জামান মুরাদ, হাসানুর রশিদ মিরাজ, মিজানুর রহমান আরজু, সিরাজুল ইসলাম লিটন, জামাল উদ্দিন মোড়ল, শামীম আশরাফ, আল আমিন তালুকদার প্রিন্স প্রমুখ।
(ঊষার আলো-এমএনএস)