বুড়িরডাঙ্গায় সরকার গং কর্তৃক মাছের ঘের ও জমি দখলের অভিযোগ

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো রিপোর্ট : খুলনা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে মোংলার বুড়িরডাঙ্গার সরকার গং কর্তৃক দক্ষিণ দিগরাজ মিয়াপাড়া বালুরমাঠ নিবাসী শেখ গোলাম মোস্তফা ও গোলাম মোর্তজার মাছের ঘের দখলের চেষ্টা এবং ভয়ভীতি ও হুমকির প্রতিবাদে খুলনা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেছেন।

মোস্তফা ও তার চাচাশ্বশুর গোলাম মোর্তজা মোংলা পোর্টে চাকরি করার সুবাদে মোংলা থানাধীন বিদ্যারবাওন দিগরাজ মৌজায় কিছু জমাজমি কিনে দক্ষিণ দিগরাজ মিয়াপাড়া বালুরমাঠ এলাকায় দীর্ঘদিন যাবৎ বাড়িঘর তৈরি করে সপরিবারে বসবাস করছে এবং বিলান জমিতে মাছের ঘের করে ভোগদখল করছে। এমনই বলেন সংবাদ সম্মেলনে মোস্তফা। দিগরাজ মৌজায় রেকর্ডীয় মালিকদের নিকট থেকে রেজিস্ট্রিকৃত কবলা মূলে শেখ গোলাম মোস্তফা ও গোলাম মোর্তজার নামে জমি কিনে শরিকদের সাথে আপোস বন্টন মতে পৃথককৃত চিহ্নিতভাবে এসএ দাগের মধ্য হতে চিহ্নিত জমিতে কেনেন। তারপর দখলপ্রাপ্ত হয়ে ওই জমিতে মাছের ঘের করে ভোগদখল এবং ওই জমির অধিকাংশ বর্তমান বিআরএস জরীপে শেখ গোলাম মোস্তফা ও গোলাম মোর্তজার নামে রেকর্ড হয়।

কিন্তু ২য় পক্ষের জমির শরিকরা পৃথক মতে অন্য দাগ হতে শেখ গোলাম মোস্তফা ও গোলাম মোর্তজার অংশের জমি দখল করে ও বর্তমান জরীপে তাদের দখলীয় জমি পৃথক বিআরএস খতিয়ান রেকর্ড হয়েছে। তাই শেখ গোলাম মোস্তফা ও গোলাম মোর্তজাকে উচ্ছেদ করবার পরিকল্পনা করছে। স্থানীয় কিছু লোকদেরকে বিভিন্নভাবে দলবদ্ধ করে শেখ গোলাম মোস্তফা ও গোলাম মোর্তজার পরিবারের উপর নানাভাবে অত্যাচার-নির্যাতন করছে। জমির ঘের দখল করে, মাছ মেরে নেয়ার চেষ্টা করছে বলে জানান সংবাদ সম্মেলনে। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৪৪ ধারায় মামলা চলছে। কিন্তু ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে মোস্তফার ঘেরের সামনে প্রতিপক্ষরা একটি সাইনবোর্ড স্থাপন করেছে। মোস্তফা গং থানায় অবহিত করলে। পুলিশ কর্মকর্তা আসলে সাইনবোর্ড তুলে ফেলে। প্রতিপক্ষরা বিভিন্নভাবে মোস্তফাদের মাছের ঘের দখল ও হুমকি দিচ্ছে বলে জানান খুলনা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলেন মোস্তফা।

(ঊষার আলো-এমএনএস)