ভয়াবহ দাঙ্গার পর ২ হাজার বন্দিকে মুক্তি দিচ্ছে ইকুয়েডর

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ইকুয়েডর প্রায় ২ হাজার বন্দিকে মুক্তি দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। দেশটির কারা কর্তৃপক্ষ কারাগারগুলোর সামনে ভিড় কমাতে বন্দিদের মধ্যে বয়স্ক, নারী ও প্রতিবন্ধীদের অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে মুক্তি দিবে।

দেশটির এসএনএআই কারা কর্তৃপক্ষের পরিচালক বলিভার গার্জন শুক্রবার জানান, সরকার বয়স্ক ও নারী বন্দিদের পাশাপাশি প্রতিবন্ধী ও বেশি অসুস্থদের মুক্তির জন্য অগ্রাধিকার দেবে।

ইকুয়েডরে কারাগারে গত সপ্তাহে ঘটে যাওয়া ভয়াবহ দাঙ্গার ঘটনায় এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ১১৮ জন নিহত হয়েছেন। স্থানীয় কর্মকর্তারা জানান, প্রতিদ্বন্দ্বী গ্যাংয়ের সদস্যদের মধ্যে সংঘর্ষে দাঙ্গা পরিস্থিতি তৈরি হয়। এটি ছিল দেশটির ইতিহাসে কারাগারে সবচেয়ে ভয়াবহ দাঙ্গার ঘটনা।

গত মঙ্গলবার গুয়াইয়াকিল শহরের একটি কারাগারে দাঙ্গার সময় কমপক্ষে ৫ বন্দিকে শিরশ্ছেদ করে হত্যা করা হয়। আর অপরদিকে অন্যদের গুলি করে মারা হয়েছে। পুলিশ কমান্ডার ফাউস্তো বুয়েনানো জানান, ঘটনার সময় বেশ কয়েকজন বন্দি গ্রেনেডও ছুড়েছে।

দাঙ্গার পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রায় ৪ শতাধিক পুলিশ কর্মকর্তাকে মোতায়েন করা হয়। এবং কারাগার থেকে লোকজনকে সরিয়ে নেওয়া হয়। আর পরে সেখানে সামরিক কর্মকর্তাদের মোতায়েন করা হয়। বর্তমানে পরিস্থিতি নিরাপত্তা বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে আছে বলে জানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, দেশটির কারাগারে চলতি বছর এ নিয়ে তৃতীয়বার ভয়াবহ দাঙ্গার ঘটনা ঘটলো। গত কয়েক মাসে এই কারাগারের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে অপরাধী গোষ্ঠীদের মধ্যে দফায় দফায় দাঙ্গার ঘটনা ঘটছে।

(ঊষার আলো-এফএসপি)