বাঁশখালীতে শ্রমিক হত্যার ঘটনায় ওয়ার্কার্স পার্টির গভীর উদ্বেগ

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে নির্মাণাধীন কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে বকেয়া বেতন পরিশোধ, কর্মঘণ্টা কমানোসহ বিভিন্ন দাবীতে আন্দোলনরত শ্রমিকদের ওপর শনিবার (১৭ এপ্রিল ) সকালে মালিকপক্ষের ইন্ধনে নির্বিচারে পুলিশ গুলিবর্ষণ করে ৫ শ্রমিক হত্যা ও অসংখ্য শ্রমিক আহত করার ঘটনায় বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, খুলনা জেলা ও মহানগর কমিটির নেতৃবৃন্দ আজ এক বিবৃতিতে নিন্দা, প্রতিবাদ জানিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। নেতৃবৃন্দ বিবৃতিতে এ ন্যাক্করজনক ঘটনার দ্রুত তদন্তপূর্বক খুনি মালিকপক্ষ ও অপরাধী পুলিশদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করে শাস্তি প্রদান এবং নিহতদের পর্যাপ্ত ক্ষতিপূরণ, আহতের চিকিৎসা ও পুনর্বাসন, শ্রমিকদের বকেয়া বেতনসহ তাদের ন্যায়সঙ্গত দাবী বাস্তবায়ন করার জোর দাবী জানান। নেতৃবৃন্দ বিবৃতিতে আরও বলেন, অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় যে, ২০১৬ সালে এস আলম গ্রুপ কর্তৃক কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়নে জনগণের জমি জোরপূর্বক অধিগ্রহণকালে প্রতিবাদী জনগণের উপর গুলি চালিয়ে ৪ জনকে হত্যা ও অসংখ্য মানুষকে আহত করা হয়। উক্ত ঘটনার আজও কোনো সুষ্ঠু বিচার হয়নি। বিবৃতিদাতা নেতৃবৃন্দ হলেন ওয়ার্কার্স পার্টি খুলনা জেলা সভাপতি কমরেড এড. মিনা মিজানুর রহমান, মহানগর সভাপতি কমরেড শেখ মফিদুল ইসলাম, জেলা সাধারণ সম্পাদক কমরেড আনসার আলী মোল্লা, মহানগর সাধারণ সম্পাদক কমরেড এস এম ফারুখ-উল ইসলাম, জেলা ও মহানগর সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য কমরেড দেলোয়ার উদ্দিন দিলু, কমরেড গৌরাঙ্গ প্রসাদ রায়, কমরেড শেখ মিজানুর রহমান, কমরেড মনির আহমেদ, কমরেড খলিলুর রহমান, কমরেড আব্দুস সাত্তার মোল্লা, কমরেড নারায়ণ সাহা, কমরেড আমিরুল ইসলাম, নির্বাহী সদস্য শেখ সাহিদুর রহমান, কমরেড মনিরুজ্জামান, কমরেড সন্দীপন রায়, কমরেড রেজাউল করিম খোকন, কমরেড আঃ হামিদ মোড়ল, কমরেড কৌশিক দে বাপী, কমরেড মোঃ আলাউদ্দিন, কমরেড মনির হোসেন, কমরেড বাবুল আখতার, কমরেড আরিফুর রহমান বিপ্লব, কমরেড অজয় দে, কমরেড এড. কামরুল হোসেন জোয়ার্দ্দার, কমরেড হাফিজুর রহমান, কমরেড গৌরী মণ্ডল প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

(ঊষার আলো-এমএনএস)