প্রভাবশালী মহলের তদবিরে ১জনকে ছেড়ে দেয়া হয়

মাদক সংশ্লিষ্টতার সন্দেহে আড়ংঘাটায় গ্রেফতার ৩

সর্বশেষ আপডেটঃ
Arrest

ঊষার আলো রিপোর্ট : মাদক ও অনৈতিক কাজে জড়িত থাকার সন্দেহে আড়ংঘাটা থানা পুলিশ উত্তম হালদার (৪৮), বিথি (১৯) ও তামান্না ইসলাম(২৪) নামের তিন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে। বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে আড়ংঘাটা বাইপাস সড়ক থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ সময় বিথির কাছ থেকে ১১পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। আটক উত্তম হালদারের রঘুনাথপুর বাজারে ওষুধের দোকান আছে। সে ডুমুরিয়া উপজেলার দেরুলী গ্রামের মৃতঃ দুলাল চন্দ্র হালদারের ছেলে। পরে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

অভিযোগ রয়েছে, প্রভাবশালী মহলের তদবিরে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। তবে পুলিশ অভিযোগ অস্বীকার করে। এ ঘটনায় এসআই আবু আল বাশার বাদী হয়ে আড়ংঘাটা থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলাটি তদন্ত করছেন এসআই সুমঙ্গল কুমার দাস। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে উত্তম হালদারকে ছাড়াতে প্রভাবশালী দু’জন জনপ্রতিনিধি আসেন। তারা বিভিন্ন মহল দিয়ে তদ্বির করিয়ে উত্তম হালদারকে থানা থেকে ছাড়িয়ে করে নিয়ে যান বলে একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানায়।

এসআই আবু আল বাশার জানান, উত্তম হালদারের সাথে মোবাইলে একাধিকবার কথা বলার মাধ্যমে দৌলতপুর কুলিবাগানের বাসিন্দা আমির সরদারের মেয়ে বিথি আক্তারের সু-সম্পর্ক হয়। বিথি তার সাথে দেখা করতে চায়। সে মতে, উত্তম হালদার আড়ংঘাটা বাইপাস সড়কে বিথির সাথে দেখা করতে আসে। কিন্তু গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে উত্তমসহ তিনজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। এদের তল্লাশী করে বিথি আক্তারের কাছে ১১পিস ইয়াবা পাওয়া যায়। তার সহযোগী হিসেবে রেলিগেটের বাসিন্দা তামান্না ইসলামকে আটক রাখা হয়। এ ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট না থাকায় উত্তম হালদারকে থানা থেকে ছেড়ে দেয়া হয়। তবে এ মাদকের মূল মালিক শলুয়ার শানতলা এলাকার ইমামুল সরদার। তাকে গ্রেফতারের অভিযান চালানো হলেও গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তবে এ মাদক মামলায় ইমামুলসহ তিনজনকে আসামি করা হয়েছে বলে এ পুলিশ কর্মকর্তা জানান।

(ঊষার আলো-এমএনএস)