মাদারীপুরে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত ১০

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো রিপোর্ট : মাদারীপুরে জেলা আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে সংঘর্ষে কমপক্ষে তিন পুলিশসহ ১০ জন আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের সদর উপজেলার কলাবাড়ি এলাকায় শনিবার (১২ জুন) সকালে। এ সময় দুর্বৃত্তরা দুই ব্যাংকের জানালা ভাংচুর করেছে। সংঘর্ষের সময়ে মহাসড়কের যান চলাচল আধা ঘন্টা বন্ধ থাকে। পরে পুলিশ লাঠিচার্জ করে উভয়পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে দিয়েছে।
রাজনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুরে অনেকদিন থেকে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাহাউদ্দিন নাছিমের সাথে মাদারীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য শাজাহান খানের বিরোধ চলে আসছে। এই বিরোধের জেরের কারণে বিভিন্ন সময় দুই গ্রুপ সংঘর্ষে লিপ্ত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে।
সকালে শাজাহান খানের বাবা মৌলভী আছমত আলী খানকে নিয়ে কটুক্তি করেছে এমন অভিযোগের ভিত্তিতে প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধনের আয়োজন করে শাজাহান খান গ্রুপের লোকজন। একই সময় একই স্থানে বাহাউদ্দিন নাছিম গ্রুপের লোকজন নৈরাজ্যের প্রতিবাদে সমাবেশ করেছিল। এ সময় আওয়ামী লীগের দুইপক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে উভয়পক্ষের লোকজন ধস্তাধস্তিতে জড়িয়ে পড়লে এক পর্যায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে পুলিশ লাঠিচার্জ করার মাধ্যমে উভয়পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় তিন পুলিশসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়ে থাকে। এ সময় উত্তেজিত নেতাকর্মীরা পাশের বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক ও ইসলামী ব্যাংকের ঘটকচর শাখাসহ বেশ কয়েকটি দোকান ও ঘরবাড়ি ভাংচুর করেছে। পরে পুলিশ খবর পেয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয় ।
মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. এহসানুল রহমান ভুইয়া জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে গেলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। এতে তিন পুলিশও আহত হয়। বর্তমানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাহাবুদ্দিন মোল্লা বলেন, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সোহরাব সরদারের বাড়ি ঘর ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। আমরা দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি।

(ঊষার আলো-এমএনএস)