UsharAlo logo
বৃহস্পতিবার, ২৫শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বাদীকে হুমকী থানায় জিডি

ফুলবাড়ীগেট প্রতিনিধি
মার্চ ৩১, ২০২৪ ১২:১২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ভারতে ঘুরতে নিয়ে স্ত্রীকে যৌনপল্লীতে বিক্রি আসামি জেলহাজতে

লম্পট যুবক আব্দুল কাদের জিলানীর বিরুদ্ধে ভারতের যৌনপল্লীতে স্ত্রীকে বিক্রি করে দেবার ঘটনায় ভুক্তভোগি নারী দায়ের করা মামলায় জেলহাজতে রয়েছে মামলার আসামি আঃ কাদের জিলানী । ভারতে বেড়াতে নিয়ে ২৫ লাখ টাকায় সে তার স্ত্রীকে বিক্রি করে দিয়েছে। দীর্ঘ এক বছর নির্যাতিত হবার পর পালিয়ে দেশে এসে স্বামী, শাশুড়ি ও ননদের বিরুদ্ধে মামলা করেন ভুক্তভোগী নারী।

গত ৬ মার্চ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে আদালত তাকে জেল হাজতে প্রেরন করেন। এর আগে তার বিরুদ্ধে আদালত গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে। মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০২০ সালে ওই নারীর মোবাইল ফোনে পরিচয় হয় নড়াইলের কালিয়া পেড়লী গ্রামের জিলানীর সঙ্গে। প্রেমের সম্পর্ক বিয়েতে গড়ায় ২০২২ সালের জুলাইয়ে। তিন মাস যেতে না যেতে পরিবারিক কলহ ও মনোমালিন্য দূর করতে ভারতে আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার প্রস্তাব দেন স্বামী জিলানী।

ওই বছর ৭ অক্টোবর ননদ ও শাশুড়ির উপস্থিতিতে দৌলতপুর থেকে স্বামীর সঙ্গে বাসে রওনা হন ভারতের উদ্দেশে।ভুক্তভোগী নারী বলেন, বিয়ের পর সুখে শান্তিতে জীবন কাটছিলো তাদের। মাস খানেকের মধ্যে তিনি অন্তঃসত্ত¡া হয়ে পড়েন। এরপর থেকে অশান্তি শুরু হয়। এক পর্যায়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর করে ডাক্তারখানায় নিয়ে তার গর্ভের সন্তান নষ্ট করেন স্বামী ও তার বাড়ির লোকজন। তিনি শারীরিক ও মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে বাবার বাড়িতে চলে যান।

কয়েকদিন পর স্বামী জিলানী ফোন করে ক্ষমা চান। সম্পর্ক ভালো হলে এক পর্যায়ে ভারতে আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব দেন। ওই বছরের ৭ অক্টোবর বেলা ১১টার দিকে দৌলতপুর বাসস্ট্যান্ডে শাশুড়ি, ননদ ও স্থানীয় দুই ব্যক্তির উপস্থিতিতে ভারতের উদ্দেশে রওনা হন স্বামীর সঙ্গে। এ সময় ননদ ও শাশুড়ি কিছু শুকনা খাবারো কিনে দেন।

তারা প্রথমে বাসে করে যশোর, তারপর যশোর থেকে অন্য বাসে করে বেনাপোল পৌছান। সেখানে কিছু লোকজনের সহায়তায় একটি জঙ্গল এলাকা দিয়ে সীমান্ত পার হয়ে অবৈধ পথে ভারতের নিশান নামে এক ব্যক্তির বাড়িতে ওঠেন। সেখানে তিন-চারদিন থাকার পর নিশান ও জিলানী তাকে ভারতের মুম্বাই শহরের একটি বাড়িতে নিয়ে যান। চলাচলের সুবিধার্থে ভারতীয় আধার কার্ডও বানিয়ে দেন। এরপর ওই বাড়িতে রেখে বাজার করার কথা বলে নিশান ও জিলানী বের হয়ে আর ফিরে আসেননি।ওই নারী আরো বলেন, দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষার পরে তারা ফিরে না এলে আকস্মিকভাবে সেখানে অপরিচিত কয়েকজন তার ঘরে প্রবেশ করে। তাদের কাছে জিজ্ঞাসা করলে তারা বলে যে, তার স্বামী ২৫ লাখ টাকার বিনিময়ে তাকে বিক্রি করে দিয়েছেন।

এদিকে ভুক্তভোগি ওই নারীকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য হুমকি দেওয়া হচ্ছে এমন অভিযোগ এনে গত ২৮ মার্চ খানজাহান আলী থানায় সাধারন ডায়েরী করেছেন ওই নারী থানায় ডায়েরী সুত্রে জানা যায় ভুক্তভোগি নারী ২৮ মার্চ বিকাল আনুমানিক ৫ টার সময় সোনাতলা বাজার থেকে শিরোমিন আসার পথে বিআরটিসি অফিসের পাশে ফাকা জায়গাতে অজ্ঞাতনামা ৪ জন তার ভ্যান গতিরোধ করে বলে তুই কাদের জিলানীর নামে মামলা করেছিস তোর লাশ যেখানে সেখানে পড়ে থাকবে তখন তুই কি করবি । মামলা তুলে নে না হলে তোর পরিনতি হবে ভয়াবহ। মামলার বাদী ওই নারী বলেন আমি কাউকে চিনতে পারিনি তবে আসামিপক্ষের লোক আমাকে ভয় দেওয়ার জন্য এ কাজ করেছি আমি বর্তমানে চরম নিরাপত্তা হীনতায় রয়েছি।

খানজাহান আলী থানার সেকেন্ড অফিসার এস আই পীযুষ বলেন হুমকির ঘটনায় থানায় জিডি হয়েছে যার নং ১৫২২ । তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।