মুজগুন্নি সড়কটি দ্রুত সংস্কারের দাবিতে মানববন্ধন

সর্বশেষ আপডেটঃ
ঊষার আলো প্রতিবেদক : মহানগরীর মুজগুন্নির সড়কটি একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক। সংস্কারের অভাবে মহাসড়কটিতে বড়-বড় খানাখন্দে পরিণত হয়েছে। ফলে সড়কটি ব্যবহারের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। নগরীর বিভিন্ন এলাকার মানুষ জরুরি প্রয়োজনে এ সড়কটি ব্যবহার করে থাকেন। একটি বিশেষায়িত হাসপাতাল ও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সংযোগ স্থল এ সড়কটি। সড়কটির দু’পাশে রয়েছে অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক, বাজার, আবাসিক এলাকাসহ সরকারি-বেসরকারি গুরুত্বপূর্ণ অফিস। খুলনা মহানগরীর সোনাডাঙ্গা বাস টার্মিনালের সাথে সংযুক্ত এই মহাসড়কটি। কিন্তু সড়কটি সংস্কারের ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের উদাসীনতা হতাশ করেছে ব্যবহারকারীদের। আজ সকালে সড়ক সংলগ্ন মুজগুন্নি শিশু পার্কের সামনে এক মানববন্ধনে এমনটাই বলেছেন বক্তারা।
‘নিরাপদ সড়ক চাই’ মানববন্ধনটির আয়োজক। সংগঠনের খুলনা নগর সভাপতি ইকবাল হোসেন বিপ্লবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন খুলনা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুর রহমান মুন্না, সহ-সভাপতি আঃ সালাম শিমুল, শেখ মোহাম্মদ নাসির, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন, সংগঠনিক সম্পাদক ফারহান চৌধুরী কনিকা, ইলিয়াজ হোসেন লাবু, তানিয়া সুলতানা প্রমূখ।
সভাপতি ইকবাল হোসেন বিপ্লব বলেন, নগরীর লবনচরা এলাকার শিপইয়ার্ড সড়ক সংস্কারের জন্য প্রায় ২৫৯ কোটি টাকা দেয়া হয়েছে। এ টাকার কোন হিসাব কর্তৃপক্ষের কাছে নেই। এক বছরের বেশী সময় ধরে রাস্তাটি বেহাল দশায় রয়েছে। খুলনা একটি পরিস্কার নগরী হিসেবে দেশবাসীর কাছে ব্যাপক পরিচিতি ছিল। কিন্তু সংস্কারের অভাবে গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা দিয়ে চলাচলের উপযুক্ত পরিবেশ নেই। সরকার দেশকে উন্নয়নের যে রোল মডেল ঘোষণা দিয়েছে মুজগুন্নি মহসড়কটি তার বাস্তব প্রমাণ।
স্থানীয় বাসিন্দা বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম বলেন, এ এলাকার কয়েকটি স্কুলের হাজার হাজার শিক্ষার্থী রাস্তা দিয়ে স্কুলে যায়। বর্ষার সময় রাস্তা পানিতে তলিয়ে যায়। রাস্তার মধ্যে বড় বড় গর্ত রয়েছে, সেখানে পড়ে আহত হয় স্কুলের শিক্ষার্থীরা। আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে যেতে গেলে রোগীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। প্রতিদিন দুর্ঘটনা লেগেই আছে। আমরা একটি টেকসই সড়ক নির্মাণের জন্য কর্তৃপক্ষের নিকট অনুরোধ জানাচ্ছি।
মানববন্ধন চলাকালে প্রতিবাদ স্বরূপ ওই এলাকার বাসিন্দা মোঃ দুলাল সড়কের একটি বড় গর্তের মধ্যে অবস্থান নেন। তিনি সংবাদিকদের ছবি তোলার আহবান জানিয়ে বলেন, এখানে মানুষ পড়ে এভাবে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন অহরহ।
(ঊষার আলো-আরএম)