মোংলা বন্দরে সিএন্ডএফ শ্রমিক-কর্মচারীদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার, জেটিতে কাজ শুরু

সর্বশেষ আপডেটঃ
মোঃ এরশাদ হোসেন রনি, মোংলা : মোংলা বন্দরের নিরাপত্তা কর্মী ও সিএন্ডএফ শ্রমিক-কর্মচারীদের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুর থেকে শুরু হওয়া কর্মবিরতি প্রত্যাহার করে নিয়েছেন সিএন্ডএফ নেতৃবৃন্দরা। ফলে রাত থেকে জেটিতে কাজ শুরু করেছেন সিএন্ডএফ শ্রমিক-কর্মচারীরা।
মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব (ভারপ্রাপ্ত) কমান্ডার শেখ ফখরউদ্দীন জানান, এ ঘটনায় সন্ধ্যায় মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের পরিচালক (ট্রাফিক) মোঃ মোস্তফা কামাল ও সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৈঠকে সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি সুলতান আহমেদ খাঁন বলেন, ঘটনাস্থলে তাদের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন না বিধায় এটি এতদূর গড়িয়েছে। তারা এ বন্দর এক মুহূর্তের জন্যেও বন্ধ থাকুক তা চান না। ইতিমধ্যে জেটি সরকারদের লাইসেন্স ফেরত দেয়া হয়েছে ও বন্দরের কার্যক্রম স্বাভাবিক হয়েছে।
মুলত বৃহস্পতিবার দুপুরে মোংলা বন্দর জেটি সিএন্ডএফ শ্রমিক-কর্মচারীরা প্রবেশ করতে গেলে তাদের গায়ে/শরীরে এ্যাপ্রোন (পোশাক) না থাকায় তাদের বাঁধা দেন নিরাপত্তা কর্মীরা। এ নিয়ে উভয় পক্ষ বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন। পরে নিরাপত্তাকর্মীরা দুইজন সিএন্ডএফ কর্মচারীকে বন্দরের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তার কার্যালয়ে নিয়ে গিয়ে তাদের কার্ড রেখে দেন। এনিয়ে জেটিতে কাজ বন্ধ রেখে কর্মবিরতি শুরু করেন সিএন্ডএফ শ্রমিক-কর্মচারীরা। পরে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সিএন্ডএফ এজেন্ট’র নেতৃবৃন্দরা এ ঘটনার বিচারের দাবীতে ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়ে কাজ বন্ধ রাখার ঘোষণাও দেন। পরবর্তীতে সেই সিদ্ধান্ত বাতিল করা হয়েছে উল্লেখ করে সিএন্ডএফ নেতা সুলতান আহমেদ খাঁন আরো বলেন, আমাদের লোকদের কার্ড ফিরিয়ে দেয়ায় পুনরায় কাজ শুরু করা হয়েছে। বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মহোদয় ঢাকা থেকে আসার পর এ নিয়ে আমাদের সাথে বসবেন বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন।