রানা প্লাজায় ক্ষতিগ্রস্ত বাগেরহাটের আফরোজাকে ব্র্যাকের উপহার

সর্বশেষ আপডেটঃ

আরিফুর রহমান, বাগেরহাট : সাভারের রানাপ্লাজা ট্রাজেডিতে ক্ষতিগ্রস্ত এবং কর্মহীন স্বামীহারা ৩ সন্তানের জননী বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার আফরোজা খাতুনকে নতুন বাড়ি উপহার দিয়েছে বেসরকারি সংস্থ্য ব্র্যাক। মঙ্গলবার (১৭ আগস্ট) দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে এ বাড়ি প্রদান করা হয়। দুর্যোগসহনশীল ও প্রতিবান্ধব এ বাড়ি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চিতলমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ লিটন আলী। আফরোজার জন্য নবনির্মিত বাড়ি চত্বরে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করে ব্র্যাক জেলা সমন্বকারী মোঃ আলমাসুর রহমান।

বক্তব্য রাখেন উপজেলা হিসাব রক্ষক কর্মকর্তা মিনারা সাত্তার, ব্র্যাকের এরিয়া ম্যানেজার মোঃ হাফিজুর রহমান, রানা প্লাজা প্রকল্পের ফিল্ড কো-অর্ডিনেটর পার্থ প্রতিম দাশসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ। ব্র্যাক হিউম্যানিটারিয়ান প্রোগ্রামের সার্বিক সহযোগিতায় নির্মিত এ বাড়ীটির চাবি আফরোজাকে হস্তান্তর করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি উপজেলা নির্বাহী অফিসার। তিনি ব্র্যাকের এ কর্মকান্ডে ধন্যবাদ জানান।

ব্র্যাক জেলা সমন্বকারী আলমাসুর রহমান জানান, ৮ বছর আগে রানা প্লাজা দুর্ঘটনায় তীব্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হন ২ হাজার ৫০০ শ্রমিক। এদের মধ্যে ৭৮০ জনকে বিভিন্ন মেয়াদী প্রকল্পের আওতায় চিকিৎসা, মনোসামাজিক কাউন্সেলিং, জীবিকা ও আর্থিক সাহায্য প্রদান করে আসছে ব্র্যাক। এদের মধ্যে ৩৩০ জন ফিজিওথেরাপিসহ চিকিৎসা সেবা পান । ৭৩৩ জন মনোসামাজিক কাউন্সেলিং পান। এছাড়াও ৩৩৪ জনকে আর্থিক সেবা এবং ৭৮০ জনকে জীবিকা বিষয়ক প্রশিক্ষণ ও মুল্ধন দিয়ে সহায়তা করা হয়। ব্র্যাকের সুবিধাপ্রাপ্ত এই ৭৮০ জনের মধ্যে একজন বাগেরহাটের চিতলমারির আফরোজা। তিনি রানা প্লাজা দুর্ঘটনায় আহত হন। স্বামী তাকে ছেড়ে চলে যাওয়ার পরে সংসারের হাল ধরেন তিনি। একসময় কাজ নেন রানা প্লাজাতে। তৃতীয় তলায় কোয়ালিটি কন্ট্রোলার হিসেবে কাজ করতে থাকেন। দুর্ঘটনার পরে ৩ সন্তান নিয়ে অসুস্থ আফরোজা থাকতে শুরু করেন মা আর বোনের সাথে। আয়ের পথ বন্ধ হয়ে চরম বিপাকে থাকা আফরোজার সাহায্যে এগিয়ে আসে ব্র্যাক। দীর্ঘমেয়াদি চিকিৎসা সেবা, মানসিক স্বাস্থ্য সেবার পাশাপাশি এক লক্ষ টাকার অনুদান দেয়া হয় তাকে। ধীরে ধীরে অবস্থার উন্নতি হতে থাকলেও মা, বোন আর সন্তানদের নিয়ে কষ্ট করতে থাকেন তিনি। ব্র্যাকের উপহার দেয়া নতুন বাড়িটি তার এই দুঃখ ভুলিয়ে ফুটিয়েছে শান্তির হাসি। নতুন বাড়িতে উঠে নতুন দিনের স্বপ্ন দেখছেন আফরোজা। এই নতুন বাড়িই শুধু নয়, ব্র্যাক নতুন জীবন শুরু করতে সব দিক থেকেই সাহায্য করেছে তাকে। সন্তানদের পড়ালেখার জন্য শিক্ষা ভাতা এবং তার চিকিৎসার জন্য এককালীন চিকিৎসা ভাতা দেয়া হয়েছে । শুধু তাই নয়, দারিদ্র্যের কষাঘাত থেকে বেরিয়ে আসতে তাকে দেয়া হয়েছে জীবিকা সহায়তা যা কাজে লাগিয়ে আফরোজা তার পরিবারের খরচ নির্বাহ করতে পারবেন বলে আমরা আশা করছি। অনুষ্ঠানে আফরোজা তার অভিব্যক্তি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন এবং ব্র্যাকের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

(ঊষার আলো-এমএনএস)