রূপসার শিয়ালী গ্রামে সহিংসতার স্থান পরিদর্শনে ওয়ার্কার্স পার্টি ও যুব মৈত্রীর নেতৃবৃন্দ

সর্বশেষ আপডেটঃ
শিয়ালী গ্রামে সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় পরিদর্শনে ওয়ার্কার্স পার্টি ও যুব মৈত্রীর নেতৃবৃন্দ।

ঊষার আলো ডেস্ক : খুলনা জেলার রূপসা উপজেলার ঘাটভোগ ইউনিয়নের শিয়ালী গ্রামে সংঘটিত সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মন্দির, বাড়িঘর, সমাধি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা-ভাংচুর-লুটপাট ও ক্ষয়ক্ষতি দেখতে মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) দুপুর দেড়টায় ঘটনাস্থলে পরিদর্শনে যান বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি ও যুব মৈত্রীর নেতৃবৃন্দ। এ সময় নেতৃবৃন্দ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের সাথে আলাপ করেন ও সহমর্মিতা জানিয়ে সর্বদা তাদের সাথে থাকার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। নেতৃবৃন্দ শনিবার (৭ আগস্ট) প্রকাশ্য দিবালোকে সহিংসতা ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে মন্দির-বাড়িঘর-দোকানপাট ভাংচুর ও সম্পদ লুটের সাথে জড়িতদের অবিলম্বে প্রেফতার, বিচার ও শাস্তি প্রদান এবং ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ দেয়ার কথা বলেন। এছাড়া নেতৃবৃন্দ ক্ষতিগ্রস্ত মন্দিরসমূহ সংস্কার করে পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে আনার এবং এলাকার মানুষদের মধ্যে ভয়ভীতি দূর করে আস্থা ফিরিয়ে আনতে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করার দাবি জানান।

এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কমরেড দিপংকর সাহা দিপু, কেন্দ্রীয় কমিটির বিকল্প সদস্য ও খুলনা মহানগর কমিটির সভাপতি কমরেড শেখ মফিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক কমরেড এস এম ফারুখ-উল-ইসলাম, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য ও শ্রমিকনেতা কমরেড খলিলুর রহমান, পার্টির মহানগর নেতা ও যুব মৈত্রীর জেলা সাধারণ সম্পাদক কমরেড এড. কামরুল হোসেন জোয়ার্দ্দার, শ্রমিকনেতা ইয়াসিন, ছাত্রনেতা রাইসুল ইসলাম সজল প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

(ঊষার আলো-এমএনএস)