শ্রম পরিচালকের কার্যালয়ের সামনে শ্রমিকদের অনশন

সর্বশেষ আপডেটঃ

শেখ বদরউদ্দিন : ব্যক্তিমালিকানাধীন মহসেন, সোনালী, এ্যজাক্স, আফিল, জুট স্পিনার্সসহ একের পর এক বন্দকৃত বেসরকারি জুট মিল চালু, শ্রমিক কর্মচারীদের চুড়ান্ত পাওনা পরিশোধসহ ৬ দফা দাবি আদায়ের লক্ষে মঙ্গলবার (৩১ আগষ্ট) বেলা ১১টা থেকে খুলনা বিভাগীয় শ্রম কার্যালয়ের সামনে বেসরকারী পাট, সুতা, বস্ত্রকল শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের (রেজিঃ ১০) উদ্যোগে অনশন কর্মসূচি পালিত হয়।

বেসরকারী পাট, সুতা, বস্ত্রকল শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি শেখ আমজাদ হোসেনের সভাপতিত্বে ও সংগঠনের প্রচার সম্পাদক সাইফুল্লাহ তারেকের পরিচালনায় অনশন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন বেসরকারী পাট, সুতা, বস্ত্রকল শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক ও মহসেন জুট মিল ওয়াকার্স ইউনিয়নের সাবেক সাধারন সম্পাদক গোলাম রসুল খান, শ্রমিক ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, মহসেন জুট মিলের শ্রমিক নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিল কাজী বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্বারী আসহাফ উদ্দীন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহাতাব উদ্দীন, আমির মুন্সি, সাংবাদিক মিহির রঞ্জন বিশ্বাস, এ্যাজাক্স জুট মিলের শ্রমিক নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়াহিদ মুরাদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা আজাহার মাদবর, বক্তিয়ার হোসেন, আঃ ওহাব, তোফাজ্জেল হোসেন, ওদুদ শরীফ, মোঃ আবজাল হোসেন, মন্টু চৌধুরী, ইমরান শেখ, সোনালী জুট মিল শ্রমিক নেতা মোঃ নুরে আলম, সেকেন্দার আলী, লিয়াকত মুন্সি, মোঃ বাবুল খান, ওবায়দুর রহমান, লুৎফর রহমান, বাবলু, বিল্লাল মোড়ল, আবুল কালাম, আবুল কাশেম, মোকছেদ শেখ, চান মিয়া, আফিল জুট মিলের শ্রমিক নেতা কাবিলউদ্দিন, নিজামউদ্দিন, মোঃ এলাহী, মাহাতাব, লুফর হোসেন, বক্তিয়ার হোসেন প্রমুখ।

এ সময় বক্তারা বলেন সরকারি জুট মিলের শ্রমিকদের পাওনাদি পরিশোধ করা হলেও বেসরকারী জুট মিল শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধে সরকারের তরফ থেকে উদ্যেগ গ্রহন করতে হবে এবং শ্রম আইন অমান্যকারী মিল মালিকদেরকে অতি দ্রত আইনের আওতায় আনতে হবে।

দুপুর ১টার সময় খুলনা বিভাগিয় শ্রম পরিচালক মোঃ মিজানুর রহমান শ্রমিকদেরকে পানি পান করিয়ে অনশন ভঙ্গ করান এসময় তিনি বলেন ব্যক্তিমালিকানা জুট মিলের শ্রমিকরা তাদের চুড়ান্ত পাওনা যাতে বুঝে পায় সে ব্যাপারে ইতিমধ্যে শ্রম প্রতিমন্ত্রীর নির্দেশক্রমে কাজ শুরু করা হয়েছে করোনার কারনে মহসেন জুট মিলের শ্রমিকদেও পাওনা পরিশোধে কিছুটা বিলম্ব হয়েছে আগামী ২ মাসের ভিতরে মহসেন জুট মিলের শ্রমিকরা তাদের চুড়ান্ত পাওনা পেয়ে যাবে বলে তিনি জানান। আফিল জুট মিলের ব্যাপারে মিল মালিক ত্রি পক্ষিয় বৈঠকের সিদ্ধান্ত অমান্য করেছে ১ সপ্তাহের ভিতরে মিল মালিককে ডাকা হবে বলে তিনি জানান।

(ঊষার আলো-এমএনএস)