স্ত্রীসহ কর্নেল শহীদ উদ্দিনের কারাদণ্ড

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানার বিশেষ ক্ষমতা আইনে হওয়া মামলায় পলাতক লে. কর্নেল (বরখাস্ত) শহীদ উদ্দিন খান ও তাঁর স্ত্রী ফারজানা আঞ্জুম খানকে ১০ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) ঢাকার অষ্টম অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ সৈয়দা হাফছা ঝুমার আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। একইসাথে এ মামলার অপর আসামি খোরশেদ আলম পাটোয়ারী ও সৈয়দ আকিদুল আলীকে খালাস দিয়েছেন।

এদিনে আসামি খোরশেদ আলম ও আকিদুলকে আদালতে হাজির করা হয়। এদের উপস্থিতিতে বিচারক রায় ঘোষণা করেন।

এর আগে, ২০১৯ সালের ১৫ জানুয়ারি রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় শহীদ উদ্দিন খানের বাসায় অভিযান চালিয়ে ২টি পিস্তল, ৬টি গুলি, ২টি শটগান ও ৩ লাখ জাল টাকা উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় ১৭ জানুয়ারি কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের পুলিশ পরিদর্শক বিপ্লব কিশোর শীল বাদী হয়ে শহীদ উদ্দিন খানসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্ত শেষে কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের পুলিশ পরিদর্শক ও তদন্তকারী কর্মকর্তা নৃপেন কুমার ভৌমিক ২১ জনকে সাক্ষী করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচারের আদেশ দেন। ১০ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন আদালত।

২০২০ সালের ১০ নভেম্বর অস্ত্র আইনের মামলায় কর্নেল (বরখাস্ত) শহীদ উদ্দিন খান, তাঁর স্ত্রী ফারজানা আঞ্জুম খান, খোরশেদ আলম পাটোয়ারী এবং সৈয়দ আকিদুল আলীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন আদালত। একই বছরের ২০ ডিসেম্বর আয়কর ফাঁকির মামলায় শহীদ উদ্দিন খানকে নয় বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত।

(ঊষার আলো-আরএম)