মোংলায় ৯ হরিণ শিকারীর আত্মসমর্পণ

সর্বশেষ আপডেটঃ
মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা : পূর্ব সুন্দরবনে অবৈধ ভাবে অনুপ্রবেশ করে হরিণ শিকার করা ৯ হরিণ শিকারী মোংলার চাঁদপাই রেঞ্জে নিজেরা সেচ্ছায় আজ আত্মসমর্পণ করেন।
সোমবার (১৬ আগষ্ট) সকাল ১১ টায় পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের রেঞ্জ কর্মকর্তার কার্যালয় আত্মসমর্পণ করেন ৯ হরিণ শিকারী।হরিণ শিকারীরা হলেন  মোঃ সাজ্জাক ব্যাপারি, পিতা-আবজাল ব্যাপারি, এমদাদুল সরদার, পিতা-সালাম সরদার, মহিদুল শেখ, পিতা- সেকেন্দার আলী শেখ, রেজাউল শেখ, পিতা -সেকেন্দার আলী শেখ,জাহাঙ্গীর মোল্যা, পিতা- ইসমাইল মোল্যা, বাচ্চু মৌছাল্লি, পিতা-হাবিবুর মৌছাল্লি, আতাউর খাঁন, পিতা- আব্দুল কাদের খাঁন,রুবেল শেখ, পিতা- ইসমাইল শেখ ও ফরিদ জোমাদ্দার, পিতা -ইয়ার আলী জোমাদ্দার। সকলে সুন্দরবন ও চিলা ইউনিয়নের বাসিন্দা।  হরিণ শিকারীর
 আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পূর্ব সুন্দরবন চাঁদপাই রেঞ্জের রেঞ্জ কর্মকর্তা এনামুল হক,চাঁদপাই স্টেশন কর্মকর্তা ওবায়দুর রহমান, চাঁদপাই সহ ব্যবস্থাপনা সংগঠন সিএসসির বর্তমান আহবায়ক ও সাবেক চিলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ শফিকুল ইসলাম রাসেল,৮নং ইউপি সদস্য অলিয়ার রহমান সরদার,বন বিভাগ প্রতিনিধি মিজানুর রহমান,চিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম  সম্পাদক শামসুর রহমান হাওলাদার চাঁদপাই সহ ব্যবস্থাপনা সংগঠনের কোষাধ্যক্ষ আল আমিন মোছাল্লি প্রমুখ।
এ হরিণ শিকারীরা তিনশো টাকার স্টাম্পে স্বাক্ষর করে ও মুসলিম ধর্ম গ্রন্থ পবিত্র আল কোরআন শপথ করে আত্মসমর্পণ করেন।
বন বিভাগ থেকে জানিয়েছেন এর আগেও ১৮ জন হরিণ শিকারী বন বিভাগের নিজের ইচ্ছায় আত্মসমর্পণ করেছেন।