গ্যাস সিলিন্ডারের আগুনে কিশোরগঞ্জে একই পরিবারের ১০ জন দগ্ধ

35
0

ঊষার আলো ডেস্ক : গ্যাস সিলিন্ডারের আগুনে কিশোরগঞ্জের মিঠামইন উপজেলার কাটখাল ইউনিয়নের কাটখাল হাজিপাড়া গ্রামে  নারী-শিশুসহ একই পরিবারের ১০ জন দগ্ধ হয়েছে। দগ্ধদের মধ্যে ৫ জনের অবস্থা গুরুতর। শনিবার (২৪ অক্টোবর) দুপুরে রান্না করার সময় গ্যাসের পাইপের লিক থেকে পুরো ঘরে গ্যাস ছড়িয়ে পড়ায় এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

কাটখাল ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ তাজুল ইসলাম জানান, হাজিপাড়ার দরিদ্র কৃষক আবদুস সালামের বাড়িতে দুর্ঘটনাটি ঘটে। দুর্ঘটনায় আবদুস সালামের স্ত্রী শিফা বেগম (৬৫), তিন ছেলে কামাল (৩৫), আনোয়ার (৩২), জামাল (২৮), মেয়ে তাসলিমা (২৫), জুয়েনা (২০), তাসলিমার দুই মেয়ে উম্মে হানি (৩), উম্মে হাবিবা (৩ মাস) ও আবদুস সালামের বড় ছেলে আবদুল আলীর মেয়ে পারভিন (১৫) ও তহুরা (১০) অগ্নিদগ্ধ হয়। অগ্নিদগ্ধ ১০ জনের মধ্যে পাঁচজনের অবস্থা গুরুতর বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।

বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে, তিন মাসের একটি শিশু ছাড়া বাকি সবার শরীরের ৭০%  পুড়ে গেছে। এদের সবাইকে ঢাকা পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে শিফা বেগম, জামাল মিয়া ও উম্মে হানির অবস্থা আশঙ্কাজনক। এ ছাড়াও আরও দু’জনের অবস্থা গুরুতর।

প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় কাটখাল উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি শামসুল হক রানা জানান, হাজিপুর গ্রামের আবদুস সালামের ঘরে গ্যাস সিলিন্ডারের পাইপে ছিদ্র ছিলো। ওই ছিদ্রের কারণে আগেই গ্যাস পুরো ঘরে ছড়িয়ে ছিলো। রান্না করতে গিয়ে সালামের স্ত্রী শিফা বেগম  চুলা জ্বালাতে পারছিলেন না। তারা এ সময় বাইরে থেকে আগুন নিয়ে চুলা জ্বালাতে গেলে আগুন পুরো ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। পরে এলাকাবাসী ঘরের আগুন নিভিয়ে দগ্ধদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।

পুলিশের কাটখাল তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক মোঃ মাসুদ মিয়া সংবাদমাধ্যমকে জানান, দগ্ধদের মধ্যে চার-পাঁচজনের অবস্থা গুরুতর।  বাজিতপুরের জহুরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে তাদেরকে।