আদিবাসী কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে গৃহশিক্ষক গ্রেপ্তার

সর্বশেষ আপডেটঃ
45
0

ঊষার আলো রিপোর্ট : সিরাজগঞ্জের তাড়াশে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী (আদিবাসী) ১ কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে গৃহশিক্ষক আবু সাইদ মোল্লাকে (৩৮) আটক করেছে পুলিশ। গতকাল ১৯ মার্চ শুক্রবার রাতে সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতাল থেকে তাকে আটক করা হয়েছে।
ধর্ষণের পর গণপিটুনির শিকার হয়ে আহত আবু সাইদ পুলিশি প্রহরায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তিনি তাড়াশ উপজেলা তালম ইউনিয়নের গুল্টা গ্রামের মৃত জাফর মোল্লার ছেলে।
এদিকে, এ ঘটনায় আদিবাসী অধ্যুষিত তাড়াশ উপজেলায় আদিবাসীদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।
তাড়াশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফজলে আশিক আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, ধর্ষণের অভিযোগে কলেজছাত্রীর বাবা থানায় মামলা করেছে। ধর্ষণের অভিযোগে গৃহশিক্ষক আবু সাইদকে মারধর করায় আহত হয়ে তিনি সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। সেখান থেকে তাকে আটক করে পুলিশ হেফাজতে ভর্তি রাখা হয়েছে। ভিকটিমের মেডিক্যাল পরীক্ষা করা হয়েছে। এছাড়া পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও প্রাথমিক তদন্ত কাজ শুরু করেছে।
গত ১৮ মার্চ বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে মেয়েকে বাসায় রেখে তার বাবা-মা আদিবাসী দম্পতি নিজেদের দোকানে চা বিক্রি করছিলেন। এ সুযোগে গৃহশিক্ষক আবু সাইদ মোল্লা কলেজছাত্রীকে তার বাড়িতে পড়াতে আসে এবং তাকে একা পেয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করে। পরে ভিকটিমের চিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে এসে তাকে আটক করে মারধর করে। পরে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় ১৯ মার্চ শুক্রবার কলেজছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে তাড়াশ থানায় মামলা করেন।

(ঊষার আলো-এম.এইচ)

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ