স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ৫০ টাকা মূল্যের নতুন স্মারক নোট ও রৌপ্যমুদ্রা

সর্বশেষ আপডেটঃ
52
0

ঊষার আলো ডেস্ক : আগামী ২৬ মার্চ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বাংলাদেশ ব্যাংক ৫০ টাকা মূল্যমানের বিনিময়যোগ্য স্মারক ব্যাংক নোট ও বিনিময়যোগ্য নয় স্মারক নোট এবং স্মারক রৌপ্যমুদ্রা মুদ্রণ করেছে। ২৮ মার্চ থেকে স্মারক ব্যাংক নোট, স্মারক নোট ও স্মারক রৌপ্যমুদ্রা বাংলাদেশ ব্যাংকের কেন্দ্রীয় মতিঝিল অফিস থেকে সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করা হবে। পরবর্তীতে দেশের অন্যান্য শাখা অফিস থেকে উক্ত স্মারক ব্যাংক নোট, স্মারক নোট ও স্মারক রৌপ্যমুদ্রা পাওয়া যাবে। এ তথ্য বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে।
মুদ্রিত নোট ও মুদ্রার ডিজাইন ও নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য
৫০ টাকা মূল্যমানের স্মারক ব্যাংক নোটের ডিজাইন ও নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য : বর্তমানে প্রচলিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি সম্বলিত ৫০ টাকা মূল্যমান ব্যাংক নোটে বিদ্যমান রং ও ডিজাইন, সম্মুখভাগের ডিজাইন বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতির। পেছনভাগের ডিজাইনে শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিনের মই দেয়া জলরং অপরিবর্তিত রেখে নোটের সম্মুখভাগের ডানদিকে জলছাপ এলাকায় লাল-সবুজ রংয়ের একটি পৃথক স্মারক লোগো থাকবে। একশ’ ভাগ কটন কাগজে মুদ্রিত এবং গভর্নর ফজলে কবির স্বাক্ষরিত একশ’৩০ মি.মি. গুণিতক ৬০ মি.মি. পরিমাপের ৫০ টাকা মূল্যমানের স্মারক ব্যাংক নোটটিতে ব্যাংক নোটের অন্যান্য সকল নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য (নিরাপত্তা সুতা, জলছাপ, মাইক্রোপ্রিন্ট, সম্মুখভাগে খসখসে লেখা ইত্যাদি) অপরিবর্তিত থাকবে।
উল্লেখ্য, নতুন ৫০ টাকা মূল্যমান স্মারক ব্যাংক নোটটি বর্তমানে প্রাপ্ত ৫০ টাকা মূল্যমানের অন্যান্য নোটসমূহের ন্যায় সর্বপ্রকার লেনদেনে ব্যবহার করা যাবে।
৫০ টাকা মূল্যমান স্মারক নোটের ডিজাইন ও নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য : বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির স্বাক্ষরিত একশ’৩০ মি.মি. গুণিতক, ৬০ মি.মি. পরিমাপের এ স্মারক নোটের সম্মুখভাগের বামপাশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি এবং নোটের ডানদিকে জলছাপ এলাকায় স্মারক লোগো মুদ্রিত রয়েছে। নোটের উপরের মাঝখানে ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ১৯৭১-২০২১’ এবং নিচে মাঝখানে ‘ÔFIFTY TAKA’ লেখা থাকবে। এছাড়া নোটের উপরে ডানকোণে স্মারক নোটের মূল্যমান ইংরেজিতে ‘50’, নিচে ডানকোণে মূল্যমান বাংলায় ‘৳৫০’ লেখা রয়েছে।
নোটের পিছনদিকে ‘১৯৭১: মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্বপূর্ণ অগ্রযাত্রা’ শীর্ষক বীর মুক্তিযোদ্ধাদের একটি ছবি মুদ্রিত আছে। নোটের উপরিভাগে ‘Golden Jubilee of Independence 1971-2021’ লেখা আছে। এছাড়া, নোটের উপরে বামকোণে বাংলায় ‘৫০’ এবং ডানকোণে ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের মনোগ্রাম’ মুদ্রিত আছে। এছাড়া নোটের নিচে ডানকোণে ইংরেজিতে ‘50’ এবং মাঝখানে ‘পঞ্চাশ টাকা’ লেখা আছে।
শতভাগ কটন কাগজে মুদ্রিত ৫০ টাকা মূল্যমান স্মারক নোটটির সম্মুখভাগে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতির ডানে দুই মিলিমিটার চওড়া নিরাপত্তা সুতা আছে এবং নোটের ডানদিকে জলছাপ হিসেবে ‘বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি’, ‘৫০’ এবং ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের মনোগ্রাম’ মুদ্রিত আছে। ৫০ টাকা মূল্যমান স্মারক নোটটির জন্য পৃথকভাবে বাংলা ও ইংরেজি লিটারেচার সম্বলিত ফোল্ডার প্রস্তুত করা হয়েছে। ফোল্ডার ছাড়া শুধুমাত্র খামসহ স্মারক নোটটির মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৫০ টাকা এবং ফোল্ডার ও খামসহ স্মারক নোটটির মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০০ টাকা।
৫০ টাকা মূল্যমান স্মারক রৌপ্যমুদ্রার ডিজাইন ও বৈশিষ্ট্য : ৫০ টাকা অভিহিত মূল্যের ৩৮ মিলিমিটার ব্যস বিশিষ্ট ও ৯২৫ ফাইন সিলভার দ্বারা নির্মিত স্মারক রৌপ্যমুদ্রাটির ওজন ৩০ গ্রাম। স্মারক মুদ্রাটির সম্মুখভাগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি (৭ মার্চের ভাষণ), প্রতিকৃতির নিচে মূল্যমান কথায় ও অংকে ‘পঞ্চাশ ৫০ টাকা’ এবং পৃতিকৃতির উপরে অর্ধবৃত্তাকারভাবে ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ১৯৭১-২০২১’ লেখা আছে। স্মারকমুদ্রার পেছনভাগে ইংরেজিতে ‘50’ এবং ‘০’ এর মাঝখানে ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের মনোগ্রাম’ ও এর নিচে ‘১৯৭১-২০২১’ মুদ্রিত আছে। এছাড়া স্মারকমুদ্রার উপরিভাগে অর্ধবৃত্তাকারভাবে ‘Golden Jubilee of Independence’ এবং নিচে ইংরেজিতে ‘FIFTY TAKA’ মুদ্রিত আছে। স্মারক রৌপ্যমুদ্রাটির মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে স্মারক বাক্সসহ চার হাজার টাকা।

(ঊষার আলো-এমএনএস)

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
1
+1
0

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ