বাগেরহাটে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর সমর্থকদের হামলা,স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ আহত ১৬

সর্বশেষ আপডেটঃ
82
0

আরিফুর রহমান, বাগেরহাট : বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলার পুটিখালি ইউনিয়নে এবারের নির্বাচন সংঘাতপূর্ন অবস্থায় পড়েছে। সংঘাতের ধারাবাহিকতায় ওই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী আব্দুর রাজ্জাক সেখ তার কর্মী-সমর্থক নিয়ে রবিবার (২৮ মার্চ) সন্ধ্যায় ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মাহাবুব সিকদারের উপর হামলা চালিয়েছে। এতে প্রার্থী মাহাবুব সিকদারসহ ১৬ জন কর্মী-সমর্থক কমবেশী আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে মনির সিকদার ও মিলন সিকদার কে রাতেই বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্ত্তি করা হয়েছে।
সোমবার (২৯ মার্চ) সকালে সদর হাসপাতালে গেলে আহতরা জানান, ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ নেতা মাহাবুব সিকদার দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে আনারস প্রতিক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। রবিবার বিকেলে পুটিখালি ইউনিয়নের গজালিয়া বাজারের কবিরাজ বাড়ীর সম্মুুখে নির্বাচনী প্রচারনা করতে গেলে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আব্দুর রাজ্জাক সেখ তার দলবল নিয়ে আমাদের উপর আকস্মিক হামলা চালায়। হাতুড়ি দিয়ে এলোপাতাড়ি মারপিটে চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহবুব সিকদার, মোতালেব হোসেন, মিল্টন সিকাদার, ফয়সাল ও সিদ্দিকসহ ১৫/১৬জন কমবেশী আহত হন। আহতরা মোড়েলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা নিতে পারে নাই পুনঃহামলার ভয়ে। আমরা দুইজন অতি কষ্টে রাতে সদর হাসপাতালে এসে ভর্ত্তি হয়ে চিকিৎসা নিচিছ। মাহবুব সিকদারসহ অন্যরা প্রাইভেটভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন।
আহত স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহাবুব সিকদার বলেন, দলীয় মনোনয়ন চেয়ে ছিলাম, কিন্তু পায়নি। যে পেয়েছে সে ছাড়া তার পরিবারের সকলেই বিএনপি রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত। যেহেতু বিএনপি আগে থেকে ঘোষনা দিয়ে তারা ইউপি নির্বাচনে অংশ নেয় নি। ফলে নির্বাচন উৎসব মুখর রাখতে, জাতির জনকের দল আওয়ামী লীগের ভাবমুর্তি রক্ষার্তে ইউনিয়নবাসি যাতে একটু ভোট দিতে পারে সে কারনে প্রার্থী হয়েছি। বিএনপি নির্বাচনে আসলে হয়তঃ আমার দলীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক নির্বাচন করতে পারতাম। নৌকা প্রতিকের প্রার্থী আব্দুর রাজ্জাক তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে সাংবাদিকদের জানান, আমার বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যমুলক অপ-প্রচার চালানো হয়েছে।
পুটিখালি ইউনিয়নে নির্বাচনি সহিংসতার বিষয়ে মোড়েলগঞ্জ থানার ওসি মোঃ মনিরুল ইসলাম সোমবার সকালে এ প্রতিবেদক কে বলেন, উভয়পক্ষই থানায় মৌখিক অভিযোগ করেছে। তাদের কে লিখিত অভিাযোগ দিতে বলা হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এখন ওই ইউনিয়নে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ