সম্পর্ক ভালো করার স্বার্থে ভারত থেকে চিনি-তুলা আমদানির সিদ্ধান্ত পাকিস্তানের

সর্বশেষ আপডেটঃ
46
0

ঊষার আলো ডেস্ক : পাকিস্তান ভারতের সাথে বাণিজ্যিক সম্পর্ক পুনঃপ্রতিষ্ঠার অংশ হিসেবে চিনি ও তুলা আমদানি শুরু করছে। বুধবার (৩১ মার্চ) পাকিস্তানের অর্থমন্ত্রী হাম্মাদ আজহার এ ঘোষণা দিয়েছেন-খবর ডনের।
তিনি বলেন, পাকিস্তানের অর্থনৈতিক সমন্বয় কমিটি (ইসিসি) বেসরকারিভাবে আপাতত ভারত থেকে পাঁচ লাখ টন চিনি আমদানির অনুমতি দিয়েছে। প্রতিবেশী দেশটির সঙ্গে চিনির দামে ব্যাপক পার্থক্য থাকায় আমদানি আবারও শুরু করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি। তার ভাষ্যমতে, পাকিস্তানের থেকে ভারতে চিনির দাম ১৫ থেকে ২০ শতাংশ কম।
তিনি আরও বলেন, আমরা চিনি আমদানির অনুমতি দিয়েছি, তবে বাকি বিশ্বেও দাম চড়া হওয়ায় সেটি সম্ভব নয়। কিন্তু আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারতে দাম তুলনামূলক কম। এ কারণে সেখান থেকে বেসরকারিভাবে পাঁচ লাখ টন চিনি আবারও আমদানির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
তুলা আমদানির অনুমতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, পাকিস্তানের পোশাক রপ্তানি বাড়ায় তুলার ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। কিন্তু গত বছর এর উৎপাদন ভালো হয়নি।
পাকিস্তানের এ মন্ত্রী বলেন, বড় শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলো মিসর বা অন্য দেশ থেকে তুলা আমদানি করতে পারে। দামের এই পার্থক্য আমাদের এসএমই খাতের ক্ষতি করছে।
বলা হচ্ছে, ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক পুনঃপ্রতিষ্ঠার অংশ হিসেবে এসব পণ্য আমদানি শুরু করছে পাকিস্তান।
উল্লেখ্য, ভারতশাসিত কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের জেরে ২০১৯ সালের আগস্ট থেকে ভারতের সঙ্গে পুনরায় পাকিস্তানের সম্পর্কের অবনতি হয়। সে সময় ইসলামাবাদে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনারকে বরখাস্ত করে পাকিস্তান। ভারতের সঙ্গে সব ধরণের বাণিজ্য, রেল ও বিমান চলাচলও বন্ধ করে দেয় তারা।
তবে করোনাভাইরাসের মধ্যে গত বছরের মে মাসে ভারত থেকে ওষুধ ও কাঁচামাল আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে পাকিস্তানের বর্তমান সরকার। এতদিন ভারত বাদে বাকি সব দেশ থেকে তুলা, সুতা ও চিনি আমদানির অনুমতি ছিল পাকিস্তানে।

(ঊষার আলো-এমএনএস)

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ