বন্যায় দূষিত পানি যেভাবে বিশুদ্ধ করবেন

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলের কারণে দেশের বেশ কিছু জেলা এখন বন্যাকবলিত। কাজে সেখানে স্বাভাবিকভাবেই বিশুদ্ধ পানির অভাব দেখা দিতে পারে। এ সময় কলেরা, আমাশয়, জন্ডিস, ডায়রিয়া ও টাইফয়েডের মতো মারাত্মক পানিবাহিত রোগ ছড়িয়ে পড়ারও আশঙ্কা থাকে।
কাজে শঙ্কামুক্ত থাকতে জেনে রাখুন ঝটপট কীভাবে পানি বিশুদ্ধ করা যায়।

পটাশ বা ফিটকিরি: এক কলসি পানিতে সামান্য পরিমাণ ফিটকিরি মিশিয়ে ২-৩ ঘণ্টা রেখে দিলে পানির ভেতরে থাকা ময়লা তলানিতে জমে। সেক্ষেত্রে পাত্রের উপর থেকে শোধিত পানি সংগ্রহ করে তলানির পানি ফেলে দিতে হবে।

ট্যাবলেট: পানি ফোটানো কিংবা ফিল্টার করার ব্যবস্থা না থাকলে পানি বিশুদ্ধিকরণ ট্যাবলেট দিয়ে পানি পরিশোধন করা যেতে পারে। প্রতি ৩ লিটার পানিতে একটি ট্যাবলেট গুলিয়ে রেখে দিলে এক ঘণ্টা পরই বিশুদ্ধ পানি পাওয়া যায়।

বৃষ্টির পানি সংগ্রহ: বৃষ্টি শুরু হওয়ার ১০ মিনিট পর হতে পরিষ্কার পাত্রে পানি সংগ্রহ করে রাখলে পানি পানের উপযোগী হয়। সেক্ষেত্রে আকাশ থেকে সরাসরি পড়া বৃষ্টির পানি সংগ্রহ করতে হবে। বাড়ির ছাদ বেয়ে পড়া কিংবা গাছের পাতা ছুয়ে পড়া বৃষ্টির পানির সঙ্গে বিভিন্ন প্রকারের জীবাণু মিশে থাকে।

এছাড়াও দূষিত পানি কয়েক ঘণ্টা তীব্র সূর্যের আলো ও তাপে রেখে দিয়ে বিশুদ্ধ করা যায়। সূর্যের ভায়োলেট রশ্মি পানির ব্যাকটেরিয়া, জীবাণু ও্র পরজীবীর ডিএনএ দুর্বল করে। কিন্তু বিশেষজ্ঞদের মতে, সূর্যের তাপে বিশুদ্ধ করা পানি ঘণ্টার পর ঘণ্টা রেখে দেওয়া উচিত নয়।

(ঊষার আলো-এফএসপি)