বাগেরহাটে হেফাজত কর্মীদের হামলায় ৭ পুলিশ আহত, গ্রেফতার-২

সর্বশেষ আপডেটঃ
31
0

বাগেরহাট প্রতিনিধি : বাগেরহাটের মোল্লাহাট উপজেলা সদরে পুলিশের উপর হেফাজত কর্মীদের হামলায় থানার ওসিসহ পুলিশ সদস্য আহত হওয়ার ঘটনায় পুলিশ মামলা রেকর্ড করেছে। এ ঘটনায় কোন আসামী গ্রেফতার না হলেও হামলায় নেতৃত্বদানকারি হিসাবে একটি মাদ্রাসার শিক্ষক হাফেজ মাওলানা আব্দুল্লাহ কে মাদ্রাসা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। বিতর্কিত হেফাজত নেতা মামুনুল হক কে গ্রেফতারের প্রতিবাদে বাগেরহাটের মোল্লাহাট উপজেলার উদয়পুর জামিয়া হালিমিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানার শিক্ষক হাফেজ মাওলানা আব্দুল্লাহর নেতৃত্বে ওই মাদ্রাসার ছাত্র শিক্ষকসহ উপজেলা বিভিন্ন মাদ্রাসা ও মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিনরা সোমবার সকালে উপজেলা হাসপাতালের সামনে বিক্ষোভ মিছিল করে। এতে মোল্লাহাট থানার ওসি বাধা দিলে হেফাজত কর্মীরা অতর্কিতভাবে পুলিশের উপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এসময় ওসি কাজী গোলাম কবীর, এসআই ঠাকুর দাস, এসআই শাহীনুর রহমান গোলদার এসআই বাহারুল এএসআই লিয়াকতসহ ৭ পুলিশ সদস্য আহত হয়। আহত পুলিশ সদস্যদের মোল্লাহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। মোল্লাহাট থানার ওসি কাজী গোলাম কবির বলেন, হেফাজত নেতা মাওলানা মামুনুল হককে গ্রেফতারের প্রতিবাদে উপজেলার বিভিন্ন মাদরাসার শিক্ষক ও মাদ্রাসার ছাত্ররা মিছিল নিয়ে হাসপাতাল মোড়ে জড়ো হতে থাকে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে তাদের জড়ো হওয়ার কারণ জানতে চাইলে তারা পুলিশের উপর হামলা করে। এঘটনায় জড়িত থাকা ও হামলায় নেতৃত্বদানের অভিযোগে জামিয়া হালীমিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানার শিক্ষক (হেফাজত নেতা) হাফেজ মাওঃ মোঃ আব্দুল্লাহ’কে অব্যাহতি পত্র প্রদান করা হয়েছে বলে ওই প্রতিষ্ঠান পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মোল্লাহাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহিনুল আলম ছানা স্বাক্ষরিত অব্যাহতি প্রত্র প্রদান করা হয়। বাগেরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর শাফিন মাহমুদ মঙ্গলবার দুপুরে বলেন, মোল্লাহাটে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় এসআই শাহীনুর রহমান গোলদার বাদী হয়ে ২৭ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো অনেকের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেছেন। ইতোমধ্যে পুলিশ ২ জন এজাহার নামীয় আসামী কে গ্রেফতার করেছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

(ঊষার আলো-আরএম)

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ