কোস্টারিকার জালে স্পেনের ৭ গোল, জার্মানকে হারিয়ে জাপানের চমক

সর্বশেষ আপডেটঃ
স্পেনের গোল উৎসব - সংগৃহিত

ঊষার আলো ক্রীড়া ডেস্ক : বিশ্বকাপের মঞ্চে কোস্টারিকার বিপক্ষে রীতিমতো গোল উৎসব করল স্পেন। ‘ই’ গ্রুপের এই ম্যাচটিতে কোস্টারিকাকে ৭-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে লুইস এনরিকের শিষ্যরা। এ যেন ২০১৪ বিশ্বকাপে ব্রাজিলের জালে জার্মানির ৭ গোলের স্মৃতিচারণ। কাকতালীয় ব্যাপার হলো, বুধবার (২৪ নভেম্বর) জাপানের কাছে নিজেদের প্রথম ম্যাচ হেরে গেছে জার্মানি।

ম্যাচের ১১ মিনিটেই স্পেনকে এগিয়ে দেন দানি ওলমো। ২১ মিনিটে ব্যবধা বাড়ান মার্কো আসেনসিও। এরপর ৩১তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে নিজের প্রথম গোলটি করেন ফেরান তোরেস। বিরতির পর ৫৪ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোল করে স্কোরলাইন ৪-০ করেন তোরেস।
৭৪ মিনিটে গাভীর সৌজন্যে পঞ্চম গোলটি পায় স্পেন। তাদের গোল উৎসব যেন থামছিলই না। শেষ মিনিটে গোলের সংখ্যা হাফ ডজন পূর্ণ করেন কার্লোস সোলের। যোগ করা সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে আলভারো মোরাতা।

এর আগে মঙ্গলবার দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনাকে ২-১ গোলে হারিয়ে চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছিল সৌদি আরব। আর বুধবার চারবারের চ্যাম্পিয়ন জার্মানিকে একই ব্যবধানে হারাল এশিয়ার আরেক দেশ জাপান। আল রাইয়ানের খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে ‘ই’ গ্রুপের ম্যাচে দুর্দান্ত জয় দিয়েই বিশ্বকাপ যাত্রা শুরু করল এশিয়ার দলটি। এলকেয় গুন্দোগানের গোলে প্রথমার্ধে এগিয়ে গিয়েছিল জার্মানি।

দ্বিতীয়ার্ধে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় জাপান। ৭৫তম মিনিটে রিৎসু দোয়ান গোল করে জাপানকে সমতায় ফেরান। ৮২তম মিনিটে দ্বিতীয় গোল দিয়ে এগিয়ে যায় জাপান। ইতাকুনার লং পাস ডান দিকে আসে তাকুমা আসানোর পায়ে। একজনকে কাটিয়ে ঢুকে যান ডি বক্সে। এরপর নিখুঁত শটে আসানো লক্ষ্যভেদ করেন। ম্যাচের বাকি সময়ে আর কোনো গোল না হওয়ায় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে জাপান।
এর আগে সমকামী আন্দোলনের সমর্থনে ‘ওয়ানলাভ আর্মব্যান্ড’ না পরতে পেরে ফিফার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়ে ম্যাচ শুরু করেন জার্মান ফুটবলাররা। ম্যাচের আগে গ্রুপ ছবি তোলার সময় হাত দিয়ে মুখ চেপে ধরে দাঁড়ান মুলার-গুন্দোগানরা। নিষেধাজ্ঞার ভয়ে যে মুখ খুলতে পারছেন না; তা এভাবেই বুঝিয়ে দিলেন তারা।

সমকামী সম্পর্ক এবং এর প্রচার কাতারের ইসলামী শরিয়া আইনে পুরোপুরি নিষিদ্ধ। এর জন্য কঠোর শাস্তি নির্ধারিত আছে। এমনকি বিশ্বকাপেও এ ব্যাপারে ছাড় দেয়নি কাতার। আয়োজক দেশের এই সিদ্ধান্তের পক্ষে অবস্থান নিয়েছে ফিফা। আর এ নিয়েই সরব বিভিন্ন দেশের ফুটবলাররা।