আইনজীবীকে আক্রমণ করায় দুই কুকুরের মৃত্যুদণ্ড!

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : পাকিস্তানে এক আইনজীবীর ওপর হামলার ঘটনায় দু’টি কুকুরকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি দেশটির করাচিতে ওই হামলার ঘটনার পর গত ৬ জুলাই আদালতের বাইরে কুকুর দু’টির দণ্ড নির্ধারণ করা হয়।

জানা গেছে, আইনজীবী মির্জা আখতার আলি সকালে হাঁটতে বের হন। এমন সময় স্থানীয় হুমায়ুন খানের দু’টি জার্মান শেপার্ড তার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। গুরুতরভাবে আহত হন আইনজীবী। সিসিটিভিতেও ওই আক্রমণের ভিডিও ধরা পড়ে।

ভিডিওটি ভাইরালের পর অনেকেই কুকুর মালিকের সমালোচনা করেন। সমালোচনার মুখে বিষয়টি আপসে মিটিয়ে নিতে আইনজীবীকে অনুরোধ করেন কুকুর দু’টির মালিক। আইনজীবী ক্ষমা করতে রাজি হন তবে কয়েকটি শর্তে।

শর্তগুলো হলো: প্রথমত কুকুর মালিক হুমায়ুন খান এই ঘটনার জন্য নিঃশর্ত ক্ষমা চাইবেন। দ্বিতীয়ত বাড়িতে আর কোনো বিপজ্জনক কিংবা উগ্র কুকুর পুষবেন না। তৃতীয় শর্ত হলো— হামলাকারী দুটি কুকুরকে অবিলম্বে একজন পশুচিকিৎসক দিয়ে ‘মানবিকভাবে হত্যা’ করতে হবে। এছাড়া ওই মালিকের আরও যেসব কুকুর আছে সেগুলোকেও ছেড়ে দিতে হবে।

উভয়পক্ষ ও সাক্ষীর উপস্থিতিতে এ নিয়ে একটি চুক্তি হয় ও চুক্তির কাগজপত্র পরে আদালতে জমা দেওয়া হয়।

কিন্তু পশু অধিকার রক্ষা সংগঠনগুলো এই চুক্তিকে বেআইনি বলে অভিহিত করেছে।

(ঊষার আলো-এফএসপি)