আমাদের মূর্খামিই পরাজয়কে বিজয় ভাবতে সাহায্য করে!

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : আমাদের সময়ে সময়ে হুজুগে মেতে উঠার যেই একটা প্রবণতা আছে না, সেই বিষয়টাকে আমার খুব কিউট লাগে। খেয়াল করে দেখবেন, হুজুগে মাতার বিষয়ের চেয়েও মহা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আমাদের কোনো প্রকার মাথা ব্যথা নাই। আমাদের মাথা ব্যথা সাধারণত বেশিরভাগ সময় অন্য জায়গায় থাকে।

শুনেছি কিয়দংশের নাকি মাথাই নাই, তাই হাতে কিছু একটা ধরায় দিলে তা নিয়েই, পুরো বসুধাকে এফোড় ওফোড় করে ফেলে। কোনো বিষয় হাতে নিয়ে মাথাকে চাপমুক্ত রাখা আর কি! খুব মজার নাহ বেপারটা! হুজুগে মেতে উঠার নিমিত্তে যে কোনো কিছুই হয় না, উল্টো ঋনাত্মক ধাক্কায় কারো কারো বাজারকে আরও চাঙ্গা করে দেয়, তা ভাবনার অবকাশই নেই !

সে যাই হোক কোথায় কি চাঙ্গা হয় সেটি আসলেই দেখার বিষয় না হলেও আমাদের নিজেদের মস্তিষ্ক বহির্ভূত কর্মকাণ্ড নিয়ে নিজেদের একটু হলেও ভাবা দরকার! মূল জায়গা এবং মৌলিকত্ব ঠিক না করে এগিয়ে যে যাওয়া যায় না, তা মাথাবিহীন চাপ নেয়া ব্যক্তিকে কে বুঝাবে?

হুজুগে মাতার এ প্রবণতা আমাদের ব্যক্তিগত ওজনের পাল্লার ব্যাপক অবনমন ঘটালেও আমরা কিভাবে যেন বিজয়ীর বেশে প্রশান্তির হাসি দেই। হতে পারে যে আমাদের মূর্খামিই আমাদের পরাজয়কে বিজয় ভাবতে সাহায্য করে!

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

লেখক : এডিসি মিডিয়া অ্যান্ড পিআর।

সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন

(ঊষার আলো-এফএসপি)